আটকের সময় শামীমের কার্যালয়ে হতে ২০০ কোটি টাকার এফডিআর ও নগদ ১০ কোটি টাকাসহ অস্ত্র পাওযায়

0
278

সময় সংবাদ বিডি-ঢাকা :অভিযানে অবৈধ অস্ত্র,ম্যাগজিন,স্বর্ণালংকার ও প্রচুর গুলি উদ্ধার করা হয়েছে। আজ শুক্রবার বেলা ১১টা থেকে জি কে শামীমের নিকেতনের ডি ব্লকের ৫ নম্বর রোডের ১৪৪ নম্বর বাসা ঘিরে ফেলে র‌্যাব। এর আগে নিকেতন এলাকাতে জি কে শামীমের আরেকটি বাসা থেকে তাঁকে ডেকে আনা হয়। পরে তাঁকে আটক করেই অভিযান চালায় র‌্যাব।

এসময় নগদ ১০ কোটি ও দুইশ’ কোটি টাকার চেকসহ যুবলীগ নেতা জি কে শামীমকে আটক করেছেন র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়নের (র‌্যাব)। শুক্রবার নিকেতনের ব্যবসা কার্যালয় থেকে ছয় দেহরক্ষীসহ শামীমকে আটক করা হয়। এই জি কে শামীম যুবলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সমবায় বিষয়ক সম্পাদক।

একই সঙ্গে তিনি নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি। জানা গেছে, বিএনপি-জামায়াত ক্ষমতায় থাকাকালে শামীম ছিলেন ঢাকা মহানগর যুবদলের সহ সম্পাদক এবং বিএনপির কেন্দ্রীয় প্রভাবশালী নেতা ও সাবেক গণপূর্তমন্ত্রী মির্জা আব্বাসের ঘনিষ্ঠ।

প্রভাবশালী ঠিকাদার হিসেবে পরিচিত এস এম গোলাম কিবরিয়া শামীম ওরফে জি কে শামীম রাজধানীর সবুজবাগ,মতিঝিল,বাসাবো এলাকার ত্রাস হিসেবে পরিচিত। জি কে শামীম এর আগেও অবৈধ অস্ত্রসহ আটক হয়েছিলেন।

আজ বেলা ২টা ৪৫ মিনিটে ওই বাসায় ঢুকে প্রথমেই দেখা যায় বিশাল গ্যারেজ। গ্যারেজের পাশে কাঁচ দিয়ে ঘেরা একটি অফিস কক্ষ, এখানে কর্মচারী ও কর্মকর্তারা বসেন। ওই ঘরের পাশে দুটি দামি মোটরসাইকেল রাখা রয়েছে। কক্ষের পাশে দুই পাল্লার একটি কাঠের দরজা। দরজার দামি কাঠের চৌকাঠ চোখে পড়ার মতো।

দরজা দিয়ে ঢুকতেই ভেতরে তিন তলায় যাওয়ার সিঁড়ি। মার্বেল টাইলসের সিঁড়িটিতে রয়েছে নকশা করা কাঠের রেলিং। চারতলা পর্যন্ত উঠে গেছে ওই সিঁড়িটি,পুরো বাসাটি শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত।

তিন তলায় শামীমের বসার কক্ষ। প্রায় ৩০ ফুট লম্বা ও ২০ চওড়া ওই কক্ষটি। পুরো কক্ষটিতে দামি বাতি। বিশাল ঝাড়বাতি। পুরো ঘরটি কাঠ দিয়ে সাজানো। বিশাল আকারের দুটি টিভি রয়েছে ঘরে।

তিন সেট সোফা ও একটি বড় টেবিল রয়েছে। ওই টেবিলের ওপর সাজিয়ে রাখা হয়েছে টাকার বান্ডিল, মদের বেশ কয়েকটি বোতল ও অস্ত্র। এগুলো ওই কক্ষ থেকে পাওয়া গেছে। ওই কক্ষের পাশেই আছে শামীমের ব্যক্তিগত কক্ষ।

র‌্যাব সূত্রে জানা গেছে, এখন পর্যন্ত প্রায় সোয়া কোটি টাকা পাওয়া গেছে। অন্যান্য কাগজপত্র থেকে এখন পর্যন্ত গুনে ১২৫ কোটি টাকার এফডিআর পাওয়া গেছে। জি কে শামীম র‌্যাবকে জানিয়েছেন, এখানে প্রায় ২০০ কোটি টাকার এফডিআর আছে। টাকা গুনে কূল পাচ্ছেন না র‌্যাবের ম্যাজিস্ট্রেটসহ কর্মকর্তারা। আর তাদের সঙ্গেই বসে আছেন জি কে শামীম। পরনে একটি হ্যাফ শার্ট ও প্যান্ট।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here