আবারও যাত্রা শুরু করছেন ডিপজল সিনেমার নতুন উদ্যোগ নিয়ে

0
125

সময় সংবাদ বিডি-ঢাকা:কোটি টাকার কাবিন,চাচ্চু, মায়ের হাতে বেশতের চাবিসহ একটানা আরও বেশ কিছু সিনেমা নির্মাণ করেন। বলা যায়, তার এই দুর্দান্ত উদ্যোগে চলচ্চিত্রের বাঁক পরিবর্তন হয়ে যায়। অশ্লীল সিনেমার পথ রুদ্ধ হয়। ২০০৬ সালে চলচ্চিত্রের অত্যন্ত ক্রান্তি লগ্নে মুভিলর্ড খ্যাত ডিপজল বিশিষ্ট পরিচালক এফ আই মানিককে নিয়ে একসঙ্গে বেশ কয়েকটি সিনেমা নির্মাণ শুরু করেন ডিপজল ।

ডিপজল বলেন সিনেমা যেহেতু আমার রক্তের সঙ্গে মিশে আছে, তাই সিনেমা আমাকে করতেই হবে। এখনো দর্শক টিভিতে আমার অভিনীতি সিনেমা দেখার জন্য অধীর আগ্রহ নিয়ে অপেক্ষা করে। দর্শকের এই আগ্রহ এবং ভালবাসা উপেক্ষা করা সম্ভব নয়। এখন তিনি আবার নতুন করে আরও তিনটি সিনেমা নির্মাণের উদ্যোগ নিয়েছেন। ইতোমধ্যে তিনটি সিনেমার গল্প প্রস্তুত করা হয়েছে। তিনি জানান,নভেম্বর-ডিসেম্বরের মধ্যে সিনেমাগুলোর কাজ ধারাবাহিকভাবে শুরু হবে। এবারও তিনি এফ আই মানিককে নিয়ে নতুন করে সিনেমা নির্মাণ করতে যাচ্ছেন।

তবে শারিরীকভাবে অসুস্থ হয়ে পড়ায় তার এই সিনেমা নির্মাণ বাধাগ্রস্ত হয়। তার নির্মিত গল্প নির্ভর সামাজিক-অ্যাকশন সিনেমাগুলো অশ্লীল সিনেমাকে অনেকটা ঝেটিয়ে বিদায় করে। তারপর থেকে চলচ্চিত্র একটি দিক নির্দেশনা পায়। অন্যান্য নির্মাতারাও এ পথে হাঁটতে থাকেন। তবে ডিপজলের তৈরি করা সুস্থ্য ধারার ব্যবসা সফল হওয়া সিনেমার পথটি অন্যরা ধরে রাখতে পারেননি। ফলে আবারও সিনেমা মন্দা পথে হাঁটতে শুরু করে।

এখন এমন অবস্থা হয়েছে যে,বলতে গেলে কোনো সিনেমাই ব্যবসা সফল হতে পারছে না। এর মূল কারণ হচ্ছে,অধিকাংশ নির্মাতা দর্শক কী ধরনের সিনেমা চায় তা ধরতে পারছেন না। দর্শকের চাহিদা না বুঝে নিজেদের মতো করে সিনেমা নির্মাণ করছেন। ফলে এসব সিনেমা ব্যর্থ হচ্ছে এবং চলচ্চিত্র ক্রমে ধ্বংসের দ্বারপ্রান্তে উপনীত হয়েছে। তিনি বলেন,তাই সময়ের সাথে তাল মিলিয়ে এবং দর্শকের মন বুঝে সিনেমা নির্মাণ শুরু করব।

তিনি জানান সিনেমায় যদি গল্পই না থাকে, তবে দর্শক তা দেখবে কেন। দর্শক তো দুইটা-তিনটা ফাইট আর গান দেখতে সিনেমা দেখে না। তারা সিনেমায় গল্প দেখতে চায়। গল্প দেখে আনন্দ পেতে ও কিছু শিখতে চায়। তারা দেশের গল্প ও দশের গল্প দেখতে চায়। আমি আমার সিনেমায় বরাবরই এ বিষয়গুলো তুলে ধরেছি। ফলে দর্শকও সেগুলো দেখেছে এবং এখনও তা টিভিতে দেখছে।

এক প্রশ্নের জবাবে  ডিপজল বলেন, সিনেমা নির্মাণের ক্ষেত্রে শিল্পী সংকট একটি বড় বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে। চরিত্র অনুযায়ী শিল্পী খুঁজে পাওয়া মুশকিল। তাই আমি নতুন কিছু শিল্পী নিয়ে কাজ শুরু করব। সিনেমায় তাদের প্রতিষ্ঠিত করব, যাতে শিল্পী সংকট কিছুটা হলেও দূর হয়।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here