আমেরিকার বুকে ছোট্ট একটি আরব

0
431

সময় সংবাদ বিডি-

ঢাকাঃ কয়েক মাস হল নিউ ইয়র্ক শহর ছেড়েছি। নতুন শহর “মিশিগান”এ আছি বর্তমানে। প্রত্যেকদিন আফসোস করি এজন্য যে, আরো ৪/৫ বছর আগে কেন এখানে আসলাম না।

এই এলাকাটি ৫০% সিলেটী, ৪০% ইয়ামেনী (আরবী) এবং বাকি ১০% অন্যান্য দেশের লোক দ্বারা পরিবেষ্টিত। রাস্তা-ঘাটে প্রায় সকল মহিলারাই পর্দা করেন। পর্দা বলতে “ষ্টাইল হিজাব” নয়; পরিপূর্ন নিকাব সহ বোরকা। বাঙ্গালী মহিলাদেরও আরবী মহিলার পর্দা দেখে টনক নড়েছে। প্রায় বেশীরভাগ পুরুষেরই দাঁড়ি আছে।

আশে পাশে প্রচুর মুসলিম পুরুষ ও মহিলা ডাক্তার। অছে স্বদেশীয় ফার্মেসী। থেরেপী দিতে গেলেও রয়েছে পরিপূর্ন পর্দা। এখানে রয়েছে ৫-৭ টি মসজিদ, যার প্রত্যেকটিতেই মাইকে আজান দেয়া হয় ৫ ওয়াক্ত। মুসল্লির সংখ্যাও নেহাত কম নয়। এছাড়াও রয়েছে ৫-৭ টি মাদ্রাসা।

ব্যাংক, হাসপাতাল, হালাল দোকান, বাঙ্গালী রেষ্টুরেন্ট সহ কোন কিছুরই কমতি নেই। বিভিন্ন জরুরী অফিস-আদালত সহ কি নেই এখানে! সুবহানাল্লাহ! মনে হয় যেন মহান রব্বের নেয়ামতে পরিপূর্ন একটি ছোট্ট ভূমি। দাঁড়ি-টুপি থাকলেও নেই পুলিশের হেনেস্তা, যা বাংলাদেশে করা হয়।

সবাই দ্বীন পালন করছে, রাষ্ট্রীয় কোন বাধা নেই। বরং প্রয়োজন পড়লে রাস্তা বন্ধ করেও জামাতে নামাজ পড়ার ব্যাবস্থা করে দেয়া হয় পুলিশ প্রশাসনের পক্ষ হতে। বিশেষ করে ঈদের জামাতে। উপরে বর্ণিত সব কিছুই মাত্র ২ স্কয়ার কি: মি: এর মধ্যেই সীমাবদ্ধ, অর্থাৎ হাতের নাগালের মধ্যেই সব কিছু। যাকে বাংলায় বলে “একের ভিতরে সব”।

লেখক-আবু জাসরাহ

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here