ইউআইটিএস-এর নবীন বরণে ইউজিসি চেয়ারম্যান: ইউআইটিএস সরকারের নিয়ম মেনে চলা একটি ভাল বিশ্ববিদ্যালয়

0
289
ইউআইটিএস এর নবীন বরণে বক্তব্য দিচ্ছেন ইউজিসির চেয়ারম্যান অধ্যাপক আবদুল মান্নান

সময় সংবাদ বিডি-

ঢাকাঃ ১ আগস্ট সকাল ১১টায় বাংলাদেশের তথ্য প্রযুক্তি ও বিজ্ঞান ভিত্তিক বিশ্ববিদ্যালয় ইউনিভার্সিটি অব ইনফরমেশন টেকনোলজি অ্যান্ড সায়েন্সেস (ইউআইটিএস)-এর শরৎকালীন নবীনবরণ ২০১৮ বিশ্ববিদ্যালয়ের স্থায়ী ক্যাম্পাস ভাটারা থানার নয়ানগরে অনুষ্ঠিত হয়। ইউআইটিএস এর উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. সোলায়মান এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত জাকজমকপূর্ণ আয়োজনের প্রধান অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশনের চেয়ারম্যান অধ্যাপক আবদুল মান্নান। বিশেষ অতিথি ছিলেন যথাক্রমে বাংলাদেশ পল্লী সহায়ক ফাউন্ডেশনের মহাপরিচালক ও প্রধানমন্ত্রীর সাবেক মূখ্য সচিব জনাব মো. আবদুল করিম, ঢাকাস্থ মিশরের রাষ্ট্রদূত জনাব ওয়ালিদ আহমেদ শামসেলদিন, ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন অব বাংলাদেশ (আইইবি) এর সভাপতি ইঞ্জিনিয়ার এম এ সবুর। নবীন বরণের প্রধান আলোচক ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠাতা ও পিএইচপি ফ্যামিলির চেয়ারম্যান সুফী মোহাম্মদ মিজানুর রহমান।
অনুষ্ঠানের শুরুতে জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা ও ভালোবাসা নিবেদন করে এক মিনিটের নিরবতা পালন এবং ১৫ আগস্ট শাহাদাৎ বরণকারী শহীদদের আত্মার মাগফেরাত কামনা করে মোনাজাত করা হয়।
প্রধান অতিথির বক্তব্যে অধ্যাপক আব্দুল মান্নান বলেন, নতুন প্রজন্মে সর্বোন্নত প্রযুক্তি ব্যবহার করতে হবে এবং তা নিয়ন্ত্রনও করতে হবে। প্রযুক্তি যেন আমাদেরকে নিয়ন্ত্রন না করে। তাহলে আমরা মনুষত্ত্ব ও পরস্পরের মধ্যে যে মানবিক সম্পর্ক ও ভালোবাসা তা ভুলে যাবো। তিনি বলেন বেসরকারী বিশ্ববিদ্যালয়ের মধ্যে ইউআইটিএস সরকারের নিয়ম নীতি মেনে চলা বিশ্ববিদ্যালয়ের একটি। এটি একটি ভালো বিশ্ববিদ্যালয়। মান্যবর রাষ্ট্রদূত জনাব ওয়ালিদ আহমেদ বলেন বাংলাদেশের সাথে মিশরের সম্পর্ক সুপ্রাচীন। আমরা দুদেশের উন্নত শিক্ষার উন্নয়নে পরস্পরকে সহযোগিতা করতে চাই।
অনুষ্ঠানের বিশেষ অতিথি জনাব আবদুল করিম বলেন, ভিশন আর স্বপ্ন না থাকলে জ্ঞান- বিজ্ঞানের সঠিক চর্চা সম্ভব হয় না। সুফি মিজান বর্তমান সময়ে সেই সংগ্রামই করে চলেছেন। আইইবি এর সভাপতি ইঞ্জিনিয়ার মো. আবদুস সবুর বলেন, বঙ্গবন্ধুর শাহাদতের পর তাঁর সুযোগ্য কন্যা বর্তমান প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে বাংলাদেশ তাঁর সঠিক পথের সন্ধান পেয়েছে। সেদিন বেশী দূরে নয় যেদিন ঢাকা- চট্টগ্রাম, ঢাকা- রাজশাহী যেতে ২ ঘন্টার বেশী সময় লাগবে না।
অনুষ্ঠানের প্রধান আলোচক আধ্যাত্মিক ব্যক্তিত্ব, সমাজ সংস্কারক ও শিল্পপতি সুফী মোহাম্মদ মিজানুর রহমান বলেন, বাংলাদেশের আজকের অগ্রগতি বাংলাদেশকে কেবল সোনার বাংলাই নয় এ গতি অব্যাহত থাকলে দেশ হীরার বাংলায় রুপান্তরিত হবে। তিনি ছাত্রদের উদ্দেশ্যে বলেন, আমরা ৩০ লক্ষ শহীদদের রক্তের বিনিময়ে অর্জিত স্বাধীনতাকে অর্থবহ করে তুলতে চাই। তোমরা সৎ ও ভালো মানুষের সান্নিধ্যে থাকতে চেষ্টা করবে, জীবন উন্নত হবে। আমরা আমাদের গ্র্যাজুয়েটদের যোগ্যতার সাথে চরিত্রবান করতে চাই।
অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, ইউআইটিএস এর কোষাধ্যক্ষ ড. এস আর হিলালী, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ড. কে এম সাইফুল ইসলাম খান, অনুষদসমূহের ডিন ও নবীন ছাত্রছাত্রীবৃন্দ। অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের সহকারী অধ্যাপক কামরুন নাহার খান মুক্তি এবং রিসার্চ সেন্টারের সহকারী পরিচালক তৌফিকুল ইসলাম খান। পরিশেষে মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here