একটি কষ্টের কথা!

0
105

সময় সংবাদ বিডি-

ঢাকাঃ খুব কষ্ট হয় যখন দেখি কাছের মানুষ গুলো বিজাতীদের অনুস্মরনে মেতে উঠে ।। এরা ধীরে ধীরে দ্বীন ইসলাম থেকে অনেক দূরে চলে যাচ্ছে একমাত্র তাদের নফসের (মনের) খায়েশ পুরনের লক্ষে। এমনকি তাদের পিতা-মাতা এতে সন্তুষ্ট অনুভব করে।। পিতা মাতার বাঁধা না পেয়ে এরা কোন ধর্মের অনুশারী হচ্ছে সেটা তারা উপলব্ধিও করছে না।।

আবূ হুরায়রা (রাঃ) বলেন, রাসূল (সাঃ) বলেছেনঃ “প্রত্যেক সন্তান ইসলামী স্বভাবের উপর জন্ম গ্রহন করে। অতঃপর,তার পিতামাতা তাকে ইহুদি,খ্রিষ্টান অথবা আগুনপূজারী করে গড়ে তোলে।”
[বুখারী,মুসলিম,মিশকাত-৯০]

কুরআ’ন সুন্নাহর বানী পড়া এবং জানার পর্যাপ্ত সুযোগ সুবিধা থাকার পরেও এরা জন্তু জানয়ার এর থেকে নিকৃষ্ট হয়ে যাচ্ছে ।। তাদের কাছে হাজার বার সত্য প্রকাশিত হওয়ার পরেও তারা নিজেকে পরিবর্তন করছে না এমনকি চেষ্টাও করছে না।। আল্লাহ্‌ আমাদের সবাইকে হেদায়াত দান করুন। আমীন
.
আল্লাহ্‌ বলেনঃ যে ব্যক্তি নিজের নফসের ইচ্ছাকে নিজের ইলাহ বানিয়ে নিয়েছে, তুমি কি তার সম্পর্কে ভেবে দেখেছ ? তুমি কি এ ধরনের মানুষের পাহারাদারী করতে পার ? তুমি কি মনে কর যে, এদের মধ্যে অনেক লোকই (তোমার দাওয়াত) মানে এবং বুঝে ? কখনও নয়। এরা তো একেবারে জন্তু-জানোয়ারের মত বরং তা অপেক্ষাও এরা নিকৃষ্ট।”[সুরা ফোরকান-৪৩-৪৪]
.
অবশেষ সব বুঝে আসে এর পরে বলি সবই জানি সবই বুঝি কি করার আছে সব ব্যাপারে ধর্ম নিয়ে এসে সামাজিকতা নষ্ট করতে চাই না।। সমাজ বলে তো একটা কথা আছে তাই নাহ (?)
.
রাসুল (সঃ) বলেছেনঃ যদি তোমার লজ্জা না থাকে, তাহলে যা ইচ্ছা তাই করতে পারো [বুখারি]

আবু লাইবাহ (শুভ)

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here