কচু শাকের হরেক গুণ

0
92


নুরনবী মিয়া, নিজস্ব প্রতিবেদক, সময় সংবাদ বিডি: বাংলাদেশর একটি অতি পরিচিত একটি সবজি।গ্রামে-গঞ্জে কচুশাক অত্যন্ত
জনপ্রিয়। এর কারন হচ্ছে বাড়ীর অানাচে-কানাচে, রাস্তার ধারে, পুকুর
পাড়ে,বিলের ধারে,ধানের ক্ষেতে, উঠানোর কোনে বিভিন্ন ধরনের পতিত জমিতে
যএতএ অযত্নে জম্মে বলে।কচুশাক খুব সহজেই পাওয়া যায। কিনে খেতে হয়
না।কচুগাছ জলাভূমি ও শুকনো দু ধরনের জায়গাতেই জম্মায়।বিভিন্ন জাতের কচু
রয়েছে। কিছু জাতের কচু যত্নের সহিত চাষ করা হয়। বন-জঙ্গলে যেসব কচু
প্রাকৃতিকভাবে জম্মায় সেগুলোকে বুনো কচু বলে। খাবারের উপযোগী
জাতগুলোর মধ্যে অন্যতম হচ্ছে মান কচু, শোলা কচু, মুখী কচু, পঞ্চমূখী
কচু, দুধ কচু, ওল কচু, পানিকচু, মৌলবী কচু ইত্যাদি। প্রজাতিভেদে কচুর
মুল, লতা, শেকড়, পাতা ও ডাঁটা সবই মানুষ খাদ্য হিসাবে গ্রহন করে।
বাংলাদেশ সবজি হিসাবে কচুর গ্রহনযোগ্যতা ও জনপ্রিয়তা বহুদিন ধরে। কচুর
সবজি হিসাবে ব্যাবহার ছাড়াও সৌন্দর্যের কারনে কিছু প্রজাতির কচু বাগানে ও
টবে চাষ করা হয়। এদের মধ্যে কতকগুলোর রয়েছে বেশ বাহারী পাতা অাবার
কতকগুলোর রয়েছে অন্যন্ত সুন্দর ফুল। ইলিশ মাছের কাঁটা অথবা ছোট চিংড়ি
মাছ দিয়ে রান্না করা কচুশাক খুবই সুস্বাদু ও মুখরোচক  হয়।
ফুলবাড়ী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের মেডিকেল অফিসার, ডাঃ অাজরিন
অাক্তার জানান, কচুশাকে প্রচুর পরিমানে ভিটামিন এ ও বি রয়েছে। তিনি
অারোও বলেন যে, এছাড়াও কচুশাকে রয়েছে চর্বি, শর্করা, খনিজ পদার্থ,
ক্যালসিয়াম,  লৌহ, ফাইবার, ফোলেট, থায়োমিন। রক্তশুন্যতা ও গভাবস্থায়
খুব সহজেই অায়রন বা লৌহের জন্য বেশী করে কচুশাক খাওয়ার পরামর্শ  অামরা
সবসময় দিয়ে থাকি। কচুশাক কোষ্ঠকাঠীনতা দুর করে। রক্তের কোস্টরলের মাএা
কমায় এবং কোলন ক্যান্সার ও ব্রেস্ট ক্যান্সার প্রতিরোধে কাজ করে এই
কচু।মানবদেহের  জন্য খুবই উপকারি। কচুশাক খাওয়ার সময় গলা চুলকায় বলে
অনেকে কচুশাক খেতে চায়না।কারন কচুতে অক্যোলেটর এর যে দানা থাকে খাওয়ার
সময় গলায় কাঁটার মতো বিধে যায। তাই বলে কচু সাস্থের পক্ষে ক্ষতিকর নয়।
কাজেই দেশের প্রতিটি পরিবারের বয়স্কসহ শিশুদের ভিটামিন এ এবং অন্যান্য
পুষ্টি উপাদানের চাহিদা মেটাতে বসতবাড়ীর অাঙিনায় বাগান করে নতুবা যার
যতটুকু পতিত জায়গা অাছে সেখানে পরিকল্পকভাবে কচুশাকসহ বিভিন্ন ধরনের গাঢ়
ও হলুদ রঙের শাক উৎপাদন করে প্রতিদিন নিয়মিত পরিমানে খাওয়ার অভ্যাস গড়ে
তুলতে হবে। কচুশাক অামাদেরকে বিভিন্ন ধরনের রোগ বালাইয়ের হাত থেকে রক্ষা
করে থাকে।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here