ক্ষণিকের না দেখাটাও যেন থেকে যায় শতাব্দী ধরে

0
143

কবিতা

বিধি তোমার জগৎ লীলায়,মানুষের মন বোঝার বোঝা বড় দায়।

সুখের আশা দিয়ে বিধি পাঠালে এই দুনিয়ায়,আশার প্রদ্বীপ বুকে জ্বেলে বেঁচে থাকা এখন বড় দায়।

এখানে সত্যিকারের জীবন্ত মানুষের মুখোমুখি হওয়া আজ যেন বড় এই কঠিন।

নিঠুর এই ভুবনের….
ভালোবেসে কষ্টের পৃথিবীটাকে চিনেছি,মানুষের বদলে ভালো মন্দ মানুষ চিনেছি,পেয়েছি স্বপ্ন গুলো ভাঙ্গার কষ্ট।

অনুভব করছি হৃদয়ের বেদনা গুলো কে,আমার কষ্ট আমি বুঝাতে পারিনি,ভালোবেসে ছিলাম তোমাকে।

আমিও স্বার্থপরের মত একদিন সব ভুলে যাবো,হয়তো ভাবছো তুমি তোমাকে স্বার্থপর।

বলছি না তুমি তো স্বার্থপর নও,তুমি তো শুধু সময়ের প্রয়োজনে নিজেকে বদলে নিলে।

নিতে পারো,ছেড়ে দিতে পারো,যে হাতটি এতদিন ধরে রেখেছিলে মনের মাঝে।

নিজেকে মাঝে মাঝে প্রশ্ন করি…..
ভালোবাসার মাঝে কি কোন ভুল ছিলো কি আমার।

তুমি দুরে চলে গেলে কেনো,তাহলে কি তুমি আমার যোগ্য নও,না আমি তোমার।

কেউ বুঝেনা এ হৃদয়ের আর্তনাদ.তুমি শুধু দেখেছো অনল।

বুকের সীমান্ত বন্ধ তুমিই করেছো…
খুলে রেখেছিলাম আমি।

আমার যুগল চোখে ছিলো মানবিক,হেয়ালি-ভালোবেসে তুমি শুধু দেখেছো অনল

উথাল পাথাল করে সব কিছু ছুঁয়ে ভেঙে গেছে অবুঝ হৃদয়ের,তোলপাড় নিজে তুলে নিদারুণ আজ।

তবু এই আকাশ এই বাতাস পিছু ডাকে…
কেনো আজ ও এই ভুবনে।

দুদিনেরই তরে শুধু কেনো মিছে মায়া,মিছে আশা”এই ভালোবাসা।

ও গো নিঠুর জীবন তুমি মোরে বলো না চির বিদায়।

…. তাইতো বলি….
মৃত্যুটা হলো ছোট একটি গল্প -আর -ভালোবাসা হলো উপন্যাস।

লেখক: জসিম ভুঁইয়া।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here