খাবার মূল স্বাদটাই নির্ভর করে লবনের উপর

0
324

সময় সংবাদ বিডি –

ঢাকাঃ 📌 লবন! ভাবার কি দরকার?

খাবার মূল স্বাদটাই নির্ভর করে লবনের উপর। লবন একটু কম-বেশী হলেই খাবারের স্বাদ হেরফের হয়ে যায়। আমরা কি কখনো ভেবে দেখেছি এই লবনটাই কত বড় ভয়ংকর হতে পারে আমাদের স্বাস্থ্যের জন্য?

লবন আপাদমস্তক সোডিয়ামে টুইটম্বুর। এক চা চামচ পরিমান লবনের মধ্যে ২৩২৫ মি: গ্রা: সোডিয়াম থাকে। যেখানে একজন মানুষের দৈনিক সর্বোচ্চ গ্রহনিয় মাত্রা (DV) হল ২৪০০ মি: গ্রা:। অর্থাৎ এই এক চামচ লবনই একজন মানের DV এর ৯৭% চাহিদা পূরন করে ফেলে।

আমাদের দেশে তরকারিতে কম হলেও ২-৩ টেবিল চামচ লবন দেয়া হয়। প্রতি টেবিল চামচে সোডিয়াম থাকে প্রায় ৭০০০ মি: গ্রা:। এখন ৩ টেবিল চামচ সমান ৩X৭০০০= ২১০০০ মি: গ্রা: !!!! এক ডেগ তরকারি যদি ৫ জন মানুষ খায়, তাহলে প্রত্যেকের ভাগে পড়ল ২১০০০÷৫= ৪২০০ মি: গ্রা: যা দৈনিক সর্বোচ্চ চাহিদার দ্বিগুন!!! আবার তিন বেলা খাওয়ার ফলে ৪২০০X৩= ১২৬০০ মি: গ্রা: সোডিয়াম আমাদের দেহে প্রবেশ করছে। যেখানে সর্বোচ্চ মাত্র ২৩০০ মি: গ্রা: গ্রহনের কথা!!!

মানব শরীরে সোডিয়ামের চেয়ে পটাসিয়ামের পরিমান বেশী হওয়া প্রয়োজন, কিন্তু আমাদের দেশে ঘটে ঠিক তার উল্টো! ফলে দ্রুত স্বাস্থ্য নষ্ট হচ্ছে আর আমরা নিরবেই নিজেকে নিজে ধ্বংস করছি। আজকাল ৩০/৩৫ বছর বয়সেই উচ্চরক্তচাপ হওয়ার কারনও এটা।

অতিরিক্ত সোডিয়াম দেহে অফুরন্ত ক্ষতি সাধন করে। এর মধ্যে অন্যতম হল স্থায়ী উচ্চ রক্তচাপ বা High Blood Pressure. সোডিয়াম রক্তে ফ্লু্য়িড বাড়িয়ে দেয় ফলে রক্তের গতি বৃদ্ধি পেয়ে যায়, যা হার্টকে দ্রুত বেগে চলতে বাধ্য করে। যা আবার হার্ট এট্যাকেরও অন্যতম একটি কারন। তাছাড়াও অতিরিক্ত সোডিয়াম দেহ থেকে ক্যালসিয়ামকে প্রস্রাবের সাথে নির্গত করে দেয়, যার কারনে আবার ক্যালসিয়ামেরও ঘাটতি দেখা দেয়।

সবচেয়ে বড় ব্যাপার হল কিডনি। সোডিয়াম কিডনির জন্য মারাত্বক ভয়ানক। শরীরে এন্টিবডি থাকার কারনে হয়ত ৩০/৪০ বছর বয়স পর্যন্ত টের পাওয়া যায় না, কিন্তু এর পরেই দেখা দিবে নানা বিধ জটিলতা। কিডনির চিকিৎসা করাত গিয়ে অনেক পরিবারকেই নি:স্ব হয়ে পথে নামতে হয়েছে।

এখনো সময় আছে আমাদের হাতে, আসুন লবন গ্রহনের পরিমান কমিয়ে দেই। পরিবারের মধ্যে যিনি রান্না করেন তাকেও বিষয়টি ভাল করে বুঝিয়ে বলুন। আপনার একটু সতর্কতা বাঁচিয়ে দিতে পারে পুরো একটি পরিবারকে। লবনের বিকল্প হতে পারে লেবু, সাইট্রিক ফল হওয়ার কারনে এর প্রচুর পুষ্টিগুন রয়েছে। ভিটামিন সি সহ আরো অনেক ধরনের ভিটামিনের উপস্থিতি রয়েছে। এছাড়াও লেবু রক্তে কলেষ্টোরেলের পরিমান কমাতে সাহায্য করে।

লেখক —আবু জাসরাহ,
নিউট্রিশন ডিপার্টম্যন্ট, ডাব্লিউ বি হসপিটাল, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here