খেতে হবে হাত দিয়ে, চামচ নয়!

0
51

ডেস্ক নিউজ, সময় সংবাদ-

ঢাকাঃ আজকাল চামচ দিয়ে খাওয়াটা অনেকে ফ্যাশন মনে করে। ভাত খাওয়ার সময় সাধারণত হাতের বদলে চামচ দিয়ে খাওয়াতেই অভ্যস্ত হয়ে ওঠেন বর্তমান যুগের অনেকেই। আপনিও কি তাদের দলেই পড়েন? হাত দিয়ে খাবার খেলে খাবার ঠান্ডা না গরম বোঝা যায়, তাই খাওয়ার সময় সাবধানতা অবলম্বন করা উচিৎ।

আমেরিকান হেলথ সায়েন্সের বিজ্ঞানীরা আমাদের জন্য একটা সুখবর দিচ্ছেন। চামচ বাদ দিয়ে হাতের পাঁচ আঙুলেই ভরসা রাখতে বলছেন এই গবেষকরা।

তাঁদের মতামত অনুযায়ী, প্রতিদিন খাবার খাওয়ার বেশ কিছু স্বাস্থ্যকর দিক আছে। চামচে করে খেলে এসব উপকার মেলে না। হাতে করে খাওয়ার উপকারিতা জানলে অনেকেই আর চামচে খেতে রাজি হবেন না। খুব অসুস্থ না হলে হাত ব্যবহার করে খেলে শুধু মানসিক আরাম হয় এমনই নয়, এর সঙ্গে যুক্ত হয় বেশ কিছু শারীরিক উপকার ।

আসুন জেনে নেই উপকারিতাগুলো- ১. হাত দিয়ে খেলে খাওয়ার সময় একাধিক পেশীর সঞ্চালন হয়। চামচ দিয়ে খাওয়ার ক্ষেত্রে এই পেশী সঞ্চালন এতটা পরিমাণে হয় না। খাওয়ার সময় যত বেশি পেশী সঞ্চালন হবে, তত রক্ত সঞ্চালন বেশি হবে শরীরে, খাবার হজমেও সুবিধা হবে।

২. হাত দিয়ে খাওয়ার সময় আমাদের আঙুলের মাধ্যমেই মস্তিষ্কের বার্তা পাকস্থলীতে গিয়ে পৌঁছায়। ফলে বিপাক ক্রিয়া উন্নত মানের হয়। এমনকি জার্নাল অব ক্লিনিক্যাল নিউট্রিশনের রিপোর্ট অনুযায়ী, চামচ দিয়ে খেলে ধাতুর স্পর্শ পাওয়ায় স্বাদকোরকের পুরোটা কার্যকর হয় না। এছাড়া রক্তে শর্করা নিয়ন্ত্রণকারী হরমোনও কম ক্ষরিত হয়। পাশ্চাত্য আদবকায়দায় অভ্যস্ত হতে গিয়ে আমাদের জীবনচর্যাতেও তার ছাপ ফেলি আমরা। আমাদের রোজনামচার বেশির ভাগ কাজেই পশ্চিমী দুনিয়ার দ্বারা অনুপ্রাণিত হয়ে তাদের স্বভাবকেই অনুসরণ করি অনেকে। এমনকি, যে কোনও খাবার, এমনকি ভাত খাওয়ার সময় সাধারণত হাতের বদলে চামচ দিয়ে খাওয়াতেই অভ্যস্ত হয়ে ওঠেন অনেকে। একই সুর এ দেশের চিকিৎসকদের গলাতেও।

জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞ সুবর্ণ গোস্বামীর মতে, হাতে করে খাওয়ার উপকারিতা জানলে অনেকেই আর চামচে খেতে রাজি হবেন না। খুব অসুস্থ না হলে হাত ব্যবহার করে খেলে শুধু মানসিক আরাম হয় এমনই নয়, এর সঙ্গে যুক্ত হয় বেশ কিছু শারীরিক উপকার হয়। হাত দিয়ে খাওয়ার সময় হাতের ছোঁয়া জিভে লাগায় স্বাদকোরক বেশি উদ্দীপ্ত হয়, ফলে খাবার বেশি স্বাদু লাগে ও মানসিক তৃপ্তি ঘটে। তাই আজ থেকে চামচ দিয়ে খাওয়া বাদ দ আসুন আজই বদলে ফেলি

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here