চাঁপাইনবাবগঞ্জে পদ্মা নদীর ভাঙনে দিশেহারা এলাকার মানুষ

0
236

image-18066স্টাফ রিপোর্টার, সময় সংবাদ বিডি-

ঢাকা:শুষ্ক মৌসুমেও চাঁপাইনবাবগঞ্জে পদ্মা নদীর ভাঙনে দিশেহারা হয়ে পড়েছেন ওই এলাকার মানুষ। দুই সপ্তাহের নদী ভাঙনে বিলীন হয়ে গেছে বেশকিছু বাড়িঘর, নদী তীরবর্তী বেশকিছু এলাকা, ফসলি জমি ও জনপদ।

এলাকাবাসীর অভিযোগ, প্রতিবছর বর্ষা মৌসুম এলে জনপ্রতিনিধিসহ সংশ্লিষ্টরা ভাঙন প্রতিরোধে প্রতিশ্রুতি দিলেও, বাস্তবে নেয়া হয়নি কোন উদ্যোগ। তবে পানি উন্নয়ন বোর্ড বলছে, বরাদ্দ পেলেই নেয়া হবে উদ্যোগ।

এদিকে, অসময়ে ভাঙন দেখা দেয়ায় ওই এলাকা পরিদর্শন করেছেন জেলা পরিষদের নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান মঈনুদ্দিন মণ্ডল।

সরেজমিনে দেখা গেছে, পদ্মার পাড় থেকে প্রায় ২৫ থেকে ৩০ ফিট নিচে পানি থাকলেও পাড়ে মাটির স্তরের নিচে বালুর স্তরে পানির ঢেউ ও বাতাস লাগায় গত দুই সপ্তাহ ধরে এ ভাঙন দেখা দিয়েছে।

কয়রাপাড়ার মফিজ উদ্দিন জানান, বর্ষাকালে নদী ভাঙন দেখে অভ্যস্ত হয়েছি। কিন্তু শুষ্ক ভাঙনে ঘরবাড়ি বিলীন হওয়া খুব কম দেখেছি।

চরবাগডাঙ্গা ইউপি চেয়ারম্যান মো. শাহীদ রানা জানান, শুষ্ক মৌসুমেও পদ্মায় গত দুই সপ্তাহ ধরে নতুনভাবে ২ কিলোমিটার এলাকাজুড়ে ভাঙন দেখা দেয়ায় এলাকার মানুষের মাঝে চর আতঙ্ক বিরাজ করছে।

চাঁপাইনবাবগঞ্জ পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী সৈয়দ সাহিদুল আলম জানান, পদ্মার বুকে বিশাল উঁচু চর পড়ায় এ ভাঙনের সৃষ্টি এবং নদীর পাড়ে মাটির স্তরের নিচে বালুর স্তরের উচ্চতা বেশি হওয়ায় পানির ঢেউ ও বাতাস লাগায় ভাঙনের সৃষ্টি হচ্ছে। বাতাসের পরিমাণ কমে গেলে এ ভাঙনের পরিমাণ কমে আসবে।

তিনি আরো জানান, গোয়ালডুবি থেকে প্রায় ২২শ মিটার পর্যন্ত বাঁধ নির্মাণের প্রকল্প মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হয়েছে। অনুমোদন পেলে পদ্মার বাম তীর সংরক্ষন প্রকল্প রক্ষা পাবে।

 

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here