🚨 জুমু’আহ চলাকালীন দুঃসাহসি লাল বাতি 🚨

0
85

সময় সংবাদ বিডি-

ঢাকাঃ আল্লাহ বলেনঃ হে ঈমানদারগণ! যখন জুমু’আর দিন নামাযের জন্য আহবান করা হবে, তখন তোমরা সত্বর আল্লাহর স্মরণের জন্য উপস্থিত হও এবং ক্রয়-বিক্রয় বর্জন কর। এটিই তোমাদের জন্য কল্যাণকর, যদি তোমরা উপলব্ধি কর। (সূরা জুমু’আহঃ ৯)
.
ও হুজুর খুৎবার চলাকাল যে স্বলাত আদায় করা নিষেধ তাই লাল বাতি জ্বালিয়ে রাখেছেন আবার বলেন বাংলায় খুৎবা দেওয়া জায়েজ নাই তাহলে বাংলায় যখন বয়ান করেন তখন লালা বাতি জ্বালিয়ে মাসজিদের হক্ব আদায় করা থেকে মুসুল্লিদের বিরত রাখার জন্য এই লালবাতি মার্কা হাদীস কোন কিতাবে পাইলেন?? যেখানে রাসুল (সঃ) নিজে খুৎবা চলাকালে দুই রাকাত স্বলাত আদায় করার নির্দেশ দিয়েছেন।।
.
.
রাসুল ( সাঃ)। একদা খুৎবা চলাকালে এক ব্যক্তি মসজিদে প্রবেশ করে বসে পড়লে তিনি তাকে বললেন, “তুমি নামায পড়েছ কি?” লোকটা বলল, না। তিনি বললেন, “ওঠ এবং হাল্কা করে ২ রাকআত পড়ে নাও।” (বুখারী ৯৩০, মুসলিম, আবূদাঊদ, সুনান ১১১৫-১১১৬, তিরমিযী, সুনান ৫১০নং)
.
অতঃপর তিনি সকলের জন্য চিরস্থায়ী একটি বিধান দেওয়ার উদ্দেশ্যে লোকেদেরকে সম্বোধন করে বললেন, “তোমাদের কেউ যখন ইমামের খুৎবা দেওয়া কালীন সময়ে উপস্থিত হয়, সে যেন (সংক্ষেপে) ২ রাকআত নামায পড়ে নেয়।” (বুখারী, ১১৭০, মুসলিম, সহীহ ৮৭৫, আবূদাঊদ, সুনান ১১১৭নং)
.
একদা হযরত আবূ সাঈদ খুদরী (রাঃ) মসজিদ প্রবেশ করলেন। তখন মারওয়ান খুৎবা দিচ্ছিলেন। তিনি নামায পড়তে শুরু করলে প্রহ্‌রীরা তাঁকে বসতে আদেশ করল। কিন্তু তিনি তাদের কথা না শুনেই নামায শেষ করলেন। নামায শেষে লোকেরা তাকে বলল, আল্লাহ আপনাকে রহ্‌ম করুন। এক্ষনি ওরা যে আপনার অপমান করত। উত্তরে তিনি বললেন, আমি সে নামায ছাড়ব কেন, যে নামায পড়তে নবী (সাঃ)-কে আদেশ করতে দেখেছি। (তিরমিযী, সুনান ৫১১নং)
.
.
বলা বাহুল্য, খুৎবা শুরু হলে লালবাতি জ্বেলে দেওয়া, অথবা কাউকে ঐ ২ রাকআত স্বলাত পড়তে দেখে চোখ লাল করা, অথবা তার জামা ধরে টান দেওয়া, অথবা খোদ খতীব সাহেবের মানা করা সুন্নাহ্‌-বিরোধী তথা বিদআত কাজ।
.
আমাদের উচিৎ মাসজিদের লালবাতি এবং দুঃসাহসী ঈমামের লালচোখ উপেক্ষা করে রাসুল (সঃ) এর হাদীসের উপরে আমল করা এবং অন্য মুসুল্লিকে উৎসাহিত করা। আর ঈমামের লালচোখ সাদা করতে এই হাদীস তার কাছে পেশ করা।।

আবু লাইবাহ

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here