থাইল্যান্ড ও ভারত থেকে চাল আমদানি বন্ধ

0
73

rice-lf-20170830184720স্টাফ রিপোর্টার ,সময় সংবাদ.কম–

ঢাকা: বাংলাদেশে খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিত করার জন্য অতি দ্রুত চাল আমদানি করার প্রয়োজনীয়তা দেখা দেয় এরই ধারাবাহিকতা বজায় রেখে আন্তর্জাতিক দরপত্র আহ্বানের পাশাপাশি সরকার থেকে সরকার (জি টু জি) পর্যায়ে চাল আমদানি করার জন্য উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়

চাল আমদানীর বিষয় নিয়ে ভারত থাইল্যান্ডের সঙ্গে যোগাযোগ আলোচনা করা হয়কিন্তু আলোচনায় চালের দাম নিয়ে সমঝোতা না হওয়ায় আলোচনাটি ব্যর্থ হয়

খাদ্য পরিকল্পনা পরিধারণ ইউনিটের (এফপিএমইউ) প্রতিবেদনে দেখা গেছে, চলতি বছরের জানুয়ারি থেকে ধারাবাহিকভাবেই কমছে খাদ্য মজুদ। জানুয়ারি শেষে লাখ ৪৩ হাজার টন খাদ্যশস্যের মজুদ থাকলেও ফেব্রুয়ারিতে তা কমে দাঁড়ায় লাখ ১০ হাজার টনে। মার্চে মজুদ আরও কমে দাঁড়ায় লাখ ৬৭ হাজার, এপ্রিলে লাখ ৬১ হাজার মে মাসে লাখ ৫৩ হাজার টনে। আর জুন শেষে সরকারের গুদামে খাদ্যশস্যের মজুদ নেমে আসে লাখ ৭৮ হাজার টনে

অতঃপর কম্বোডিয়ার সঙ্গে আড়াই লাখ মেট্টিক টন চাল আমদানির আলোচনা সফল হয়েছে এবং চুক্তি স্বাক্ষরের কার্যক্রম চলমান রয়েছে। কার্যপত্রে আরও বলা হয়, আজ আগামীকালের বৈঠকে চালের ধরন, পরিমাণ, শর্তাদি এবং দাম নির্ধারণ করা হবে

তিনি আরও বলেন, বাংলাদেশ এখন চাল নিয়ে সঙ্কটে আছে তাই ভারতসহ আশপাশের দেশগুলো চালের মৃল্য অনেক বাড়িয়েছে। তারা প্রতিবেশি দেশ হয়েও এক্ষেত্রে ব্যবসায়িক ভাবমূর্তি দেখিয়েছে। এটা আমাদের জন্য খুবই দুঃখজনক

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here