শুক্রবার , ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৭
ব্রেকিং নিউজ

পুঠিয়ায় ‘নব্য জেএমবির ৩ সদস্য’ গ্রেপ্তার

রাজশাহীতে ‘নব্য জেএমবির ৩ সদস্য’ গ্রেপ্তার - জাতীয়সময় সংবাদ বিডি,রাজশাহী:-রাজশাহীর পুঠিয়া উপজেলা থেকে ‘নব্য জেএমবির’ তিন সদস্যকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

সোমবার রাত ২টার দিকে উপজেলার বানেশ্বর বাজারের একটি ছাত্রাবাস থেকে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়।

পুঠিয়া থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) প্রণয় কুমার প্রামানিক এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

গ্রেপ্তাররা হলেন- জেলার বাগমারা উপজেলার জামলই গ্রামের আবদুস সালামের ছেলে আবদুল্লাহ আল কাদি (২৮), পূর্ব দৌলতপুর গ্রামের আলেফ উদ্দিনের ছেলে সোহেল রানা (২২) ও দুর্গাপুর উপজেলার নওপাড়া গ্রামের মজিবুর রহমানের ছেলে মোস্তাফিজুর রহমান (২৪)।

এদের মধ্যে কাদি নাটোরের এনএস কলেজ, সোহেল রাজশাহী কলেজ এবং মোস্তাফিজুর রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র বলে জানিয়েছে পুলিশ।

সন্ত্রাসবিরোধী আইনে দায়ের করা পুরনো একটি মামলায় গ্রেপ্তার দেখিয়ে সোমবার দুপুরে তাদের আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। পরবর্তীতে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তাদের রিমান্ডের আবেদন করা হবে বলেও জানিয়েছে পুলিশ।

মামলাটির তদন্ত কর্মকর্তা এসআই প্রণয় কুমার প্রামানিক বলেন, “মামলার এজাহারে এই তিন আসামির নাম উল্লেখ ছিল না। তবে তদন্তে নেমে ওই মামলার ঘটনার সঙ্গে তাদের সংশ্লিষ্টতা পাওয়া গেছে। এ কারণে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়েছে। গ্রেপ্তারের সময় তারা সাংগঠনিক বৈঠক করছিলেন।”

তারা সবাই নব্য জেএমবির সদস্য বলে দাবি করেন এসআই প্রণয়।

তবে গ্রেপ্তার ব্যক্তিরা পুলিশের কাছে নিজেদের ইসলামী ছাত্রশিবিরের নেতা হিসেবে পরিচয় দিয়েছেন। এসআই প্রণয় কুমার জানান, আবদুল্লাহ আল কাদি নিজেকে ইসলামী ছাত্রশিবিরের পুঠিয়া উপজেলা শাখার সেক্রেটারি, সোহেল রানা ক্যাশিয়ার, ও মোস্তাফিজুর রহমান প্রচার সম্পাদক বলে দাবি করেছেন।

তিনি বলেন, “তারা নব্য জেএমবির সদস্য বলে ঢাকা থেকে তথ্য এসেছে।”

এসআই প্রণয় বলেন, “নব্য জেএমবির এই তিন সদস্য বানেশ্বর বাজারের ‘ফারুক ছাত্রাবাসে’ দীর্ঘদিন ধরেই থাকতেন এবং সেখান থেকে নিয়মিত সংগঠনিক কর্মকাণ্ড চালাতেন। বেশকিছু দিন আগে পুঠিয়ায় এক জেএমবি সদস্যের বাড়িতে বোমা বানানোর সময় বিস্ফোরণের ঘটনায় তাদের সংশ্লিষ্টতা আছে। ওই ঘটনায় দায়ের করা মামলায়ই তাদের গ্রেপ্তার দেখানো হয়েছে।”

Print Friendly