ভারত-বাংলাদেশ মৈত্রী সম্মাননা-২০১৮ পেলেন যশোরের ঝিকরগাছার দুই কৃতি সন্তান স্বপন ও গিলবার্ট

0
524

নিউজ ডেস্ক, সময় সংবাদ-

বাংলাদেশের সাধারন মানুষের জন্য সমাজ সেবা দক্ষ সংগঠক হিসেবে অসামান্য অবদানের জন্য ভারতবাংলাদেশ মৈত্রী সম্মাননা২০১৮ পদক পেয়েছেন দুই বাংলাদেশি। যাদের দুজনেরই বাড়ি যশোর জেলার ঝিকরগাছা উপজেলায়। পদক প্রাপ্ত এই দুইজন হলেন মো: আব্দুস সালাম খান স্বপন গিলবার্ট নির্মল বিশ্বাস।

গত ২৬শে অক্টোবর সন্ধা ৬ টায় পশ্চিমবঙ্গের রাজধানী কলকাতার বেহালায় শরৎ সদন অডিটোরিয়ামে এক জমকালো অনুষ্ঠানে পশ্চিম বঙ্গের মেম্বর অফ লেজিসলেটিভ এ্যাসেম্বলী, এবং হাওড়া জেলার বালির বিধায়ক শ্রীমতি বৈশালী ডালমিয়া (সাবেক আইসিসি প্রধান জগমোহন ডালমিয়ার মেয়ে) এই ভারত বাংলাদেশ মৈত্রী সম্মাননা পদক ২০১৮ হস্তান্তর করেন। পদক প্রাপ্ত এই দুই কৃতি সন্তানের মধ্যে মো: আব্দুস সালাম খান স্বপন, বঙ্গবন্ধু ফাউন্ডেশন, ঢাকা মহানগর উত্তরের সহসভাপতি এবং গিলবার্ট নির্মল বিশ্বাস আলোর পরশ এনজিও এর প্রতিষ্ঠাতা ও নির্বাহী পরিচালক।

ঝিকরগাছা উপজেলার হাজিরবাগ ইউনিয়নের মাটিকোমরা গ্রামের মুক্তিযুদ্ধের সংগঠক, বিশিষ্ট সমাজ সেবক ও সাবেক বল্লা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান, প্রয়াত আবুল হোসেন খান এর ছোট ছেলে জনাব স্বপন বঙ্গবন্ধু ফাউন্ডেশন ছাড়াও অনেক সামাজিক সংগঠনের সাথে সম্পৃক্ত। তিনি ব্যক্তিগত জীবনে ব্যবসায়ী হলেও তৃনমূল পর্যায় অর্থাৎ গ্রাম থেকে শুরু করে ব্যক্তিগত ও বিভিন্ন সামিজিক সংগঠনের মাধ্যমে মানুষের মৌলিক চাহিদা পূরনের প্রায় সবক্ষেত্রেই অগ্রনী ভুমিকা রেখে চলেছেন।

জনাব গিলবার্ট নির্মল বিশ্বাস ঝিকরগাছা উপজেলার শিমুলিয়া ইউনিয়নের শিমুলিয়া মিশনারী সংলগ্ন  বাড়ির সন্তান। তিনি কোরিয়াতে লেখাপড়া করে এসে বর্তমানে ব্যাংকার হিসাবে আছেন। এ ছাড়াও তিনি অনেক সামাজিক সংগঠনের সাথে সম্পৃক্ত থেকে মানুষের জন্য কাজ করে যাচ্ছেন।

এ দুজনের বাংলাদেশের সামাজিক উন্নয়নমূলক কাজের স্বীকৃতিস্বরুপ কলকাতার অনুভব পণ্যশ্রী সাংস্কৃতিক সংগঠন ভারতবাংলাদেশ মৈত্রী সম্মাননা২০১৮ পদক প্রদান করে।

ভারত বাংলাদেশ মৈত্রী উৎসব ও বিজয়া সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন প্রাদেশিক সরকারের দুই মন্ত্রী, স্থানীয় সংসদ সদস্যসহ অন্যান্য বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ।

সমগ্র অনুষ্ঠানটি পরিচালনা ও উপস্থাপনা করেন পশ্চিম বঙ্গের বিশিষ্ট সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব অলোক রায় ঘটক। অনুষ্ঠান শেষে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিবেশন করেন।

সময় আগত অতিথিরা বাংলাদেশের এই দুই কৃতি সন্তানের উত্তরোত্তর সফলতা কামনা করেন।

 

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here