ভারত সীমান্তে ফের গোলাগুলি নিহত ৪

0
208

সময় সংবাদ বিডি -ঢাকাঃ কাশ্মীর ইস্যুতে শুরু থেকেই যুদ্ধাবস্থা সৃষ্টি হয়েছে ভারত পাকিস্তানের মধ্যে। পাকিস্তানের সঙ্গে চলমান উত্তেজনার মধ্যে পরমাণু নীতিতে পরিবর্তন আনার হুমকিও দিয়েছে ভারত।

পাল্টা প্রতিক্রিয়ায় ‘উগ্রপন্থি মোদি সরকারে’র হাতে পরমাণু অস্ত্র অনিরাপদ আখ্যায়িত করে বিষয়টিতে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের দৃষ্টি আকর্ষণ করেছেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান।

এইদিকে অস্ত্রবিরতি লঙ্ঘন করে কাশ্মীর সীমান্তে ফের গুলি চালিয়েছে পাক’ভারত। রোববার ভারতীয় বাহিনীর চালানো হামলায় ২ পাকিস্তানি নাগরিক নিহত হয়েছে। পাল্টা হামলায় ২ ভারতীয় সৈন্য নিহত হয়েছে বলে দাবি করেছে দেশটি। খবর এক্সপ্রেস ট্রিবিউনের।

সোমবার পাকিস্তান পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ও এক বিবৃতিতে নিয়ন্ত্রণরেখায় ভারতীয় বাহিনীর হামলার প্রতিবাদ জানিয়েছে।

রোববারের এ ঘটনায় পাকিস্তানও পাল্টা জবাব দিয়েছে বলে আন্তঃবাহিনীর জনসংযোগ অধিদফতর জানিয়েছে। আইএসপিআর জানায়, পাকিস্তানি সেনাদের পাল্টাগুলিতে দুই ভারতীয় সেনা নিহত ও কয়েকজন আহত হয়েছে। হামলায় ভারতের কয়েকটি চেকপোস্টও ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে বলে জানানো হয়। এর আগে গত বৃহস্পতিবার ও শনিবার নিয়ন্ত্রণ রেখায় দু’দেশের সৈন্যরা সংঘর্ষে জড়িয়েছিল।

৫ আগস্ট ভারতীয় সংবিধানের ৩৭০ অনুচ্ছেদ বাতিলের মধ্য দিয়ে কাশ্মীরের স্বায়ত্তশাসনের অধিকার ও বিশেষ মর্যাদা কেড়ে নেয় বিজেপি নেতৃত্বাধীন ভারতের কেন্দ্রীয় সরকার।

লাদাখ ও কাশ্মীরকে দুটি পৃথক কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলে পরিণত করতে পার্লামেন্টে বিল আনা হয়। বিরোধীরা বিষয়টি নিয়ে সরব হলেও তাদের ঐক্যবদ্ধ বিরোধিতার অভাবে লোকসভা ও রাজ্যসভা দুই কক্ষে বিলটি পাস হয়।

এ নিয়ে প্রথম থেকেই তীব্র আপত্তি জানিয়ে আসছে পাকিস্তান। এটা ভারতের একতরফা সিদ্ধান্ত, এই অভিযোগ তুলে নিরাপত্তা পরিষদের দ্বারস্থ হয় তারা। বিষয়টি নিয়ে গত শুক্রবার জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের বৈঠকও অনুষ্ঠিত হয়।

পাকিস্তান আন্তঃবাহিনীর জনসংযোগ অধিদফতরের বরাতে এক্সপ্রেস ট্রিবিউন জানায়, রোববার ভারতীয় বাহিনী বিনা উসকানিতে নিয়ন্ত্রণরেখায় মর্টার ট্যাংক থেকে গোলাবর্ষণ করে। এতে হাসান দীন (৬১) এবং লাল মোহাম্মদ (৭৫) নামে দুইজন বেসামরিক নাগরিক নিহত হয়েছেন।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here