ভ্রান্ত আলেম

0
52

সময় সংবাদ বিডি

ঢাকাঃ এই শীত মৌসুমে দেখা যাবে আমাদের দেশে ওয়াজের ছড়াছড়ি।।এরা ওয়াজ করে নিজের মতো ইমোশন মিশিয়ে। হাসন হোসেই (রাঃ), আলী (রঃ),ফাতেমা (রাঃ), বিভিন্ন পীর বুজুর্গের নামে মিথ্যা কিচ্ছা কাহানী বয়ান করে। যা কুর’আন হাদীসের কোথাও নাই।এইসব বক্তা অজ্ঞ মুসলিমদের ইমোশন কে পূজি করে নিজে বক্তব্য প্রদান করে নিজে কান্না করার অভিনয় করে অজ্ঞদের কান্না করাইয়া বড় বক্তা হয়ে যায়।কিছু শরীয়তের কথা বললেও এর সাথে আছে মারেফত আর ত্বরিকত যার হাকিক্বত বিশ্বাস করলে মুসলিমদের ঈমান ধ্বংসের বড় কারন হিসাবে দাঁড় হয়ে যেতে পারে ।। নাউজুবিল্লাহ।।
.
রাসূল (সঃ) বলেছেনঃ আমি আমার উম্মতের একটি বিষয়কে দজ্জালে চেয়ে ও বেশী ভয় করি। আমি ভয় পেয়ে জিজ্ঞেস করলাম, হে আল্লাহর রসুল সেটা কি? তিনি বল্লেন,বিপথগামী ও পথভ্রষ্ট আলেম। [সহি মুসলিমঃ৬,৭ মুসনাদে আহমদ:২১৬২১,২১৬২২ তাবরানী:৭৬৫৩]
.
দুর্ভাগ্য যে বর্তমানে কিছু লোক (পীর নিয়ন্ত্রিত) মাদ্রাসায় সাজেশান পড়ে আলেম সার্টিফিকেট সংগ্রহ করে, কিন্তু তারা কুরআনের A to Z পড়ে না, জানে না বা জানলে ও তা মনে রাখে না, বিধায় আমাদের সমাজে পথভ্রষ্ট ও ভ্রান্ত আলেম বেড়ে গেছে। তাদের অজ্ঞতায় সৃজিত জাল-যঈফ হাদিসের জন্য সাধারণ মুসলিম শির্ক ও বিদাআত চিনতে পারছেন না। এরাই বর্তমানে বলে বেড়ায় “ধর্ম বুঝা কঠিন, মাদ্রাসা না পড়লে কোন ভাবেই ধর্ম জানা যায় না তারচে তারা যা বলে তা অন্ধ ভাবে অনুসরণ করতে”।
.
ইসলাম একটি সহজ ও দলিল ভিত্তিক ধর্ম।এটা মানতে কুরআন ও সুন্নাহ(in to to) অনুসরণ করতে হয়। কোন পীর,ঈমাম কিংবা আলেম এর স্বপ্ন,ইচ্ছা,গনতন্ত্র, ভাল লাগা, না লাগার উপর ইসলাম নির্ভর করে না। আল্লাহ্‌ বলেন, আলেমদের অন্ধ অনুসরণ করা নিষেধ।।
.
আল্লাহ্‌ বলেনঃ তোমরা অনুসরণ কর, যা তোমাদের প্রতি পালকের পক্ষ থেকে অবতীর্ণ হয়েছে এবং আল্লাহকে বাদ দিয়ে অন্য সাথীদের অনুসরণ করো না। [সূরা আরা’ফঃ ৩]
.
আল্লাহ্‌ আরো বলেনঃ তারা আরও বলবে, হে আমাদের পালনকর্তা, আমরা আমাদের নেতা ও বড়দের কথা মেনেছিলাম, অতঃপর তারা আমাদের পথভ্রষ্ট করেছিল।[সূরা আহজাবঃ ৬৭]
.
আল্লাহ্‌ আমাদের এই সকল ভ্রান্ত আলেমদের থেকে হেফাজত করুন।। এবং কুর’আন সুন্নাহ দিয়ে যাচাই বাছাই করে আলেম সিলেক্ট করে বক্তব্য শুনে তাকে মেনে চলার তৌফীক দান করুন। ইন’শা আল্লাহ্‌।।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here