মন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের প্রথম ভারত সফর

0
169

news_img (1)

নিজস্ব প্রতিবেদক, সময় সংবাদ বিডি

ঢাকা: প্রায় সাড়ে ৩ বছরে মন্ত্রী হিসেবে প্রথমবারের মত ভারত সফরে গেলেন সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

শনিবার ফেসবুকে এক স্ট্যাটাসের মাধ্যমে এ তথ্য জানিয়েছেন মন্ত্রী নিজেই।

এ বিষয়ে ওবায়দুল কাদের তার ফেসবুক স্ট্যাটাসে লিখেছেন “ভারতের পরিবহন ও জনপথ মন্ত্রী নীতিশ গড়কারীর আমন্ত্রণে ৪দিনের সফরে আমি এখন ভারতে। গত সাড়ে ৩ বছরে এটাই আমার প্রথম কোন বিদেশ সফর।”

“বিদেশ সফর না করেও দেশের উন্নয়ন সম্ভব তা ওবায়দুল কাদের ভাই দেখিয়ে দিয়েছেন।”- বলে মন্তব্য করেছেন জাহিদ সিদ্দিক নামে একজন।

প্রথম বিদেশ সফরে মন্ত্রীর সুস্থতা এবং সফলতা কামনা করেছেন তিনি।

মোজাম্মেল হক নামে তার আরেকজন ফলোয়ার লিখেছেন-“আপনি অন্য অনেকের চেয়ে বেশি দেশপ্রেমিক। অন্য অনেক মন্ত্রী ইতিমধ্যে বিদেশ সফরে রেকর্ড গড়েছে।”

এছাড়া বেশিরভাগে মন্তব্যে মন্ত্রীর নিরাপদ সফর কামনা করা হয়েছে।

বর্তমান সরকারের সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী হিসেবে ওবায়দুল কাদের ১৬ মাস পার করলেও মন্ত্রী হিসেবে তিনি সাড়ে তিন বছর পার করেছেন।

কারণ, আওয়ামী লীগ সরকারের গত মেয়াদের শেষ দিকে তিনি যোগাযোগ ও রেলমন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব পান। ওই মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বে থাকা সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত একটি অর্থ কেলেঙ্কারীর পরে পদত্যাগ করলে মন্ত্রীত্ব দেওয়া হয় ওবায়দুল কাদেরকে। এরপর ৫ জানুয়ারির নির্বাচনের পর সরকার গঠন করলে তিনি আবারও জায়গা পান শেখ হাসিনার টানা দ্বিতীয় মেয়াদের সরকারে।

জানা যায়, ভারতীয় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর ঢাকা সফরের আগে দু’দেশের মধ্যে সড়ক অবকাঠামো-সংক্রান্ত নানা বিষয় ও দুটি বাস সার্ভিস বিষয়গুলো চূড়ান্ত করতেই ভারত গেছেন ওবায়দুল কাদের।

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সূত্র জানায়, নরেন্দ্র মোদির সফরে ঢাকা-সিলেট-শিলং-গুয়াহাটি ও কলকাতা-ঢাকা-আগরতলা সরাসরি বাস চলাচল-সংক্রান্ত দুটি চুক্তি সই হওয়ার কথা রয়েছে। এছাড়া ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে আশুগঞ্জ বন্দর থেকে আখাউড়া হয়ে আগরতলা পর্যন্ত সড়কটি চার লেনে উন্নীতকরণ এবং ফেনী নদীর ওপর সেতু নির্মাণসহ ফেনী-বেলুনিয়া-সাবরুম-রামগড় সড়ক নির্মাণকাজ উদ্বোধন করার কথা রয়েছে।

প্রধানমন্ত্রী মোদীর সফরে বাংলাদেশকে ভারত নতুন তিন বিলিয়ন ঋণ সহায়তা দেওয়ার বিষয়টিও চূড়ান্ত প্রায়। সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয় সূত্রে জানায যায়, নতুন এলওসির জন্য ক্যাপিটাল ড্রেজিং, বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন করপোরেশনের (বিআরটিসি) জন্য ৫০০ বাস (৩০০ দ্বিতল ও ২০০ আর্টিকুলেটেড) ও ৪০০ ট্রাক ক্রয় এবং আশুগঞ্জ আইসিটি নৌ-টার্মিনালের মত প্রকল্প তৈরি করা হয়েছে।

সামনে এতসব প্রকল্প ও প্রস্তাব নিয়ে ওবায়দুল কাদেরর এবারের ভারত সফর অত্যন্ত গুরুত্ববহ হিসেবেই দেখছেন সংশ্লিষ্টরা।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here