সোমবার , ১৬ অক্টোবর ২০১৭
ব্রেকিং নিউজ

মন দিয়ে ঘুমান

আশিক ইকবাল, সময় সংবাদ

সবার জন্য চাই ঘুম। সবাই ঘুমান কিন্তু ঘুমের সবকিছু আদ্যোপান্তের ঠাহর এখনও করতে পারেন নি বিজ্ঞানীরা। মানুষের দৈনন্দিন কাজকর্মের অনেকটাই এখন চিকিৎসকের হাতের মধ্যে হলেও রাত্রিকালীন দীর্ঘসময়ের ঘুমের অনেকটাই অজানা অধরা রয়ে গেছে। স্তন্যপায়ী প্রাণী থেকে পাখি, সাপ থেকে উভচর ব্যাঙ, এমনকি মাছেরও প্রয়োজন ঘুম। ঘুম নিয়ে তাই আগ্রহের শেষ নেই। সাম্প্রতিক সময়ের গবেষণায় উঠে আসা ঘুম নিয়ে কয়েকটি বিজ্ঞানসম্মত খোঁজ দেওয়া গেল-

*মোবাইল রিচারজের মত, মগজের রিচারজের জন্য চাই ঘুম। মস্তিস্কের কোষের সঙ্গে ওই ঘুমের মধ্যে ওই দেহকোষ নিজের মেরামতি সেরে ফেলে। দেহের হরমোনের সমতা ঠিক রেখে শরীরকে আবারও তরতাজা করে দেয়।

* বয়সভেদে ঘুমের চাহিদা বিভিন্ন রকম। শিশুদের জন্য ১৬ ঘণ্টা। ৩-১২ বছর বয়সীদের জন্য ১০ ঘণ্টা। ১৩-১৮ বছরের জন্য ১৩ ঘণ্টা। ১৯ থেকে ৫৫ বছরের জন্য ৮ ঘণ্টা। ৬৫ ঊর্ধ্ব মানুষের জন্য ৬ ঘণ্টা। এমনটাই নাকি উপযুক্ত।

* ঘুমের অন্যতম প্রধান বিকার স্বপ্ন। ঘুমের শেষ পর্যায়ে যখন তা ভেঙে যাওয়ার মুখোমুখি তখনই স্বপ্ন শুরু হয়। তবে গবেষণায় জানা গেছে শতকরা মাত্র ৪০ জন নিয়মিত স্বপ্ন দেখেন। শতকরা ১২ জন স্বপ্ন দেখে কেবল সাদা- কালোতে।

* দৈনন্দিন জীবনে চলার পথে যে বিষয়টা আমরা কম গুরুত্ব দিই, সেটাই স্বপ্ন হয়ে ফিরে আসে। আমরা যাদের মুখ একবার দেখেছি, তাদের মনে রাখি বা না রাখি, স্বপ্নে তাদের দেখাই মেলে। ব্যক্তি আবেগের উপর স্বপ্নের ধরণ নির্ভর করে।

* ঘুমের অনেক বৈকল্য রয়েছে। প্যারাস্মিনয়া এমন এক মানসিক বৈকল্য যেখানে ঘুমিয়েও ব্যক্তি অস্বাভাবিক নড়াচড়া করেন। অনেক সময়ও ঘুমের মধ্যে অপরাধ করার প্রবণতা থাকে।

* মানুষ যখন শুয়ে ঘুমান, তার উপর ব্যক্তিত্ব বোঝা যায়- দাবি বিজ্ঞানীদের। এই ধরণের মানুষের সংখ্যা শতকরা ৪১। সাধারণত এসব মানুষেরা রাশভারী হলেও হন খোলা মনের।

দেখা গেছে যারা বেঁকে ঘুমায় তারা একটু সন্দেহ – বাতিক হয়। এদের সংখ্যা শতকরা ১৫। সৈন্যদের ভঙ্গিতে শুয়ে ঘুমানো মানুষেরা একটু সংরক্ষণশীল হন। এদের সংখ্যা ৮ শতাংশ। ঝর্নার মত আলুথালুভাবে শুয়ে থাকা মানুষেরা একটু হুল্লোড় বাজ হয়। এই ধরণের মানুষ মাত্র ৭ শতাংশ। যারা মাছের ভঙ্গিতে ঘুমান তারা ভাল শ্রোতা। এদের সংখ্যা শতকরা ৫ জন। দীর্ঘদিন ধরে সমীক্ষা চালিয়ে এই তথ্যটুকু যোগাড় করতে পেরেছেন। এর মধ্যে বৈজ্ঞানিক প্রমাণের অনেক অভাব লক্ষ্য করা যায়।

Print Friendly