রাজধানীতে ডিএনসিসির অভিযান  সড়ক থেকে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদে 

0
164

মো:দেলোয়ার হোসেন” সময় সংবাদ বিডি-ঢাকা: কাওরান বাজার ও খিলক্ষেতে ফুটপাত ও সড়ক থেকে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদে ডিএনসিসির অভিযান চলছে, আজ ২৬ সেপ্টেম্বর: বেলা এগারোটা থেকে রাজধানীর কাওরান বাজারের ফুটপাত ও সড়কের অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদে ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের (ডিএনসিসি) অভিযান পরিচালিত হয়েছে।

এসয় নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ আমিনুল ইসলাম এবং সাজিদ আনোয়ারের এ অভিযানে নেতৃত্ব দেন। অভিযানকালে প্রায় তিন শতাধিক অস্থায়ী দোকান,শেড, ফুটপাতের উপর নির্মিত স্থাপনা ইত্যাদি উচ্ছেদ করা হয়। উচ্ছেদ অভিযানে সাংবাদিকদের ব্রিফিংকালে ডিএনসিসির মেয়র মোঃ আতিকুল ইসলাম বলেন,কাওরান বাজারের এই রাস্তাগুলো অনেক প্রশস্ত,অবৈধ দখলমুক্ত করা গেলে ফার্মগেট থেকে রেল ক্রসিংয়ের পাশ দিয়ে কাওরান বাজারের এ সকল রাস্তা ব্যবহার করে যানজট অনেক কমানো যায়।

তিনি বলেন আমরা ফুটপাত ও সড়কের উপর কোনো ধরনের অবৈধ স্থাপনা রাখতে দেবনা। জনগণের ট্যাক্সের টাকা খরচ করে এ সকল রাস্তা ও ফুটপাত নির্মাণ করা হয়েছে। জনগণ কোনো অবস্থাতেই চায় না এসকল রাস্তা ও ফুটপাত অবৈধ দখলদারদের হাতে চলে যাক।

ফুটপাত ও রাস্তা দখল করার কারণে জনগণ অনেক কষ্ট করেন,দুর্ভোগ পোহান। এর আগে প্রয়াত মেয়র আনিসুল হক তেজগাঁও সড়কটিকে ট্রাক-কাভার্ডভ্যানের দখল থেকে মুক্ত করেছিলেন। কাওরান বাজারের এ রাস্তাগুলো যদি আমরা অবৈধ দখল থেকে মুক্ত করতে পারি,তাহলে খুব সহজেই এ অঞ্চলের যোগাযোগ নিশ্চিত করা যাবে।

মেয়র আরো বলেন,ফুটপাত ও সড়ক দখল করে জনগণকে দুর্ভোগে রেখে কোন ধরনের বাণিজ্য করতে দেয়া হবে না। কাওরান বাজারের নিরাপত্তা নিশ্চিত করার জন্য স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সহায়তায় একটি পুলিশ ফাঁড়ি স্থাপন করা হবে বলে তিনি জানান। উদ্ধারকৃত ফুটপাত ও সড়ক আবারো জাতের দখল হয়ে না যায় সে জন্য মেয়র গণমাধ্যম এবং জনগণের সহযোগিতা কামনা করেন।

আতিকুল ইসলাম বলেন,পুনরুদ্ধারকৃত ফুটপাত ও সড়ক দখল হওয়া থেকে রক্ষা করতে স্থানীয় ওয়ার্ড কাউন্সিলর ও পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তার সমন্বয়ে একটি মনিটরিং কমিটি গঠন করা হয়েছে। এছাড়া খিলক্ষেতে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ আবদুল হামিদ মিয়া এবং জুলকার নায়নের নেতৃত্বে প্রায় ছয় শতাধিক অস্থায়ী স্থাপনা ফুটপাত ও সড়ক থেকে উচ্ছেদ করা হয়। ডিএনসিসির উচ্ছেদ অভিযান ও ভ্রাম্যমাণ আদালত অব্যাহত থাকবে বলে জানিয়েছেন,ডিএনসিসির মেয়র মোঃ আতিকুল ইসলাম।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here