লৌহজংয়ে মুক্তিযোদ্বার পরিবারকে ভিটে মাটি উচ্ছেদের চেষ্টা

0
202

03

মোঃ রুবেল ইসলাম,লৌহজং(মুন্সীগঞ্জ) প্রতিনিধি

মুন্সীগঞ্জ: উপজেলার হাটভোগদিয়া গ্রামে এমন আবেগ টুকু যেন শোনার কেউই নাই। স্বামীর শেষ সম্বল স্মৃতি চিহৃ কবর আর মাথা গুজার ঠাই ভিটে মাটি টুকু হারিয়ে দ্বারে দ্বারে ঘুরে বেড়াচ্ছে এক মুক্তিযোদ্বার মা। কমলা বেগম(৮৫) তার স্বামী মুক্তিযোদ্বা আব্দুল মালেক মোড়ল স্বাধীনতার চার বছর পরই মারাজান। মুক্তিযোদ্বা ছেলে আর স্বামী হারিয়ে বেচেঁ থাকার জীবন যুদ্ব শুরু হয় কমলা বেগমের বাকি দুজন সন্তান নিয়ে। কোন বেলা খেয়ে না খেয়ে আকড়ে থাকে স্বামীর রেখে যাওয়া ভিটে মাটি টুকুর উপর।

তাও যেন তর সইলনা  পাশেই কুড়িগাঁও গ্রামের  প্রভাবশালী জয়নাল আকনের। লোলব দৃষ্ঠি মুক্তিযোদ্বা বিধবা কমলা বেগমের শেষ সম্বল ভিটে বাড়ি আর একটুকরো জমির উপর।  কমলা বেগম অভিযোগ করেন ,গত দুই তিন দিন ধরে তার বাড়ির আশ পাশে  লাগানো ১০/১২টি কাঠ গাছ যার মুল্যে প্রায় ৩ লাখ টাকা  এ সব গাছ কেটে নিয়ে যায় জয়নাল আকন ও তার লোকজন মিলে।অতপড়  গত শনিবার রাতে বেশ কিছু সন্ত্রাসী  নিয়ে কমলা বেগমের বসত বাড়িতে হামলা চালিয়ে তাকে ঘর থেকে উচ্ছেদ করে ঘর ভেঙ্গে নিয়ে যায় । ও ঘরে থাকা তার সহায় সম্বল নগত টাকা সহ সন্ত্রাসীরা। বাড়ির পাশে থাকা জমির ফসল উপরে ফেলে এবং তার স্বামী আর মুক্তিযোদ্বা সন্তানের স্মৃতি বিজড়িত কবর টুকু পর্যন্ত ভেঙ্গে গুড়িয়ে দেন রাতের অন্ধকারে।

স্থানীয় এলাকাবাসি জানান, জয়নাল আকন তার সন্ত্রাসী লোকজন নিয়ে কমলা বেগমের বাড়ি ঘরে হামলা চালায় তাকে উচ্ছেদ করে ঘরদোয়ার ভেঙ্গে নিয়ে যায় এবং আবাদ করা জমির ফসল তারা উপড়ে ফেলে স্বামী ও মুক্তিযোদ্বা ছেলের কবর ভাংচুর করে বাড়ির গাছপালা কেটে নিয়ে যায়। লৌহজং মুক্তিযোদ্বা কমান্ডের ডেপুটি কমান্ডার মোঃ মহিউদ্দিন বাবুল মুন্সি সাথে কথা হলে তিনি সংবাদ কর্মিদের কে  জানান, আব্দুল মালেক মোড়ল এজন গেজেট ভুক্ত মুক্তিযোদ্বা তার বাড়ি লৌহজং উপজেলার হাটভোগদিয়া গ্রামে। মুক্তিযোদ্বা আব্দুল মালেক স্বাধীনতার চার বছর পর ১৯৭৫ সালে অসুস্থ্য হয়ে মারাযান, তার মা কমলা বেগম বর্তমানে তার ছেলের মুক্তিযোদ্বা  ভাতা ও পাচ্ছেন।

এই পরিবারটিকে উচ্ছেদের খবর আমরা পেয়েছি এবং প্রশাসনকে অবহিত করেছি। এই বিষয়ে কমলা বেগমের ছোট ছেলে কুদ্দুস মোড়ল বাদি হয়ে শনিবার রাতে লৌহজং থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন। লৌহজং থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ রিয়াজুল হক জানান, অভিযোগ পেয়েছি তদন্ত করে দোষী ব্যক্তিদের বিরুদ্বে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here