শ্রবণশক্তি হারানোর ঝুঁকিতে ১১০ কোটি তরুণ-তরুণী

0
49

atnewsbd06820

স্টাফ রিপোর্টার, সময় সংবাদ বিডি-

ঢাকাঃ বিশ্বের প্রায় একশো দশ কোটি তরুণ-তরুণী ঝুঁকির্পূণ শ্রবণযন্ত্র ব্যবহার এবং ক্রমবর্ধমান শব্দদূষণের কারণে শ্রবণশক্তি হারানোর ঝুঁকিতে রয়েছে। এমন হুঁশিয়ারি দিয়েছে জাতিসংঘের বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)।

সংস্থার বিশেষজ্ঞরা এই সতর্কতা জারি করে বলেছেন যে এদের অধিকাংশই বুঝতে পারছেন না যে একবার তারা শ্রবণশক্তি হারালে তা আর ফিরে আসবে না।

সংস্থার বিশেষজ্ঞ ড. এতিয়েন ক্রুগ জাতিসংঘ রেডিওর সংবাদদাতা ড্যানিয়েল জনসনকে বলেন, এই ঝুঁকিটা ক্রমশই বাড়ছে।

ড. ক্রুগ বলেন, এ প্রবণতা মহামারির মতো বিস্তারলাভ করছে। বেশি বেশি মানুষ নানা ধরনের শ্রবণযন্ত্র কিনছে এবং সেগুলো ব্যবহার করছে। সুতরাং, আমরা দেখছি বিপুল সংখ্যক মানুষ বিশেষ করে উচ্চ ও মধ্যআয়ের দেশগুলোতে তরুণ জনগোষ্ঠীর অর্ধেকেরও বেশি সংখ্যকের কাছে এসব শ্রবণযন্ত্র রয়েছে। এদের অপর চল্লিশ শতাংশ পানশালা ও খেলার মাঠে উঁচুমাত্রার শব্দদূষণের শিকার। এগুলো তাদের কাছে অবশ্যই ফূর্তির বিষয়। কিন্তু, একইসাথে তারা শ্রবণক্ষমতার ওপর এসব শব্দদূষণের ঝুঁকিটা সম্পর্কে একেবারেই অসচেতন এবং আমরা সেটির প্রতিই তাদের দৃষ্টি আকর্ষণের চেষ্টা করছি।

ডব্লিউএইচও’র প্রচারণার ব্যাপারে ড. ক্রুগ বলেন, গান শোনাটা ঠিক আছে। কিন্তু, তার শব্দের মাত্রা নিয়ন্ত্রণটা গুরুত্বর্পূণ। অনেক বেশি জোরে অনেকক্ষণ ধরে গান শোনাটা কানের যে ক্ষতি করবে সেটা বোঝা দরকার। একইসাথে বিভিন্ন শ্রবণযন্ত্র প্রস্তুতকারকদেরকে শব্দের মাত্রা নিয়ন্ত্রণের ব্যবস্থা উন্নত করার জন্যও সচেতন করার চেষ্টা করছেন তারা।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here