শয়তানের কাছ থেকে ইলম নেয়া!

0
123

সময় সংবাদ বিডি- 

ঢাকাঃ আবু হুরায়রা (রাঃ) শয়তানের কাছ থেকে ইলম্ নিয়েছেন তা সঠিক। তবে সে ইলম্ এর উপর বিশ্বাস বা আমল করেন নি রাসূল (সঃ) কতৃক অনুমোদন পাওয়া পর্যন্ত। ইংরেজীতে যাকে Justification বলে।

আজকের দিনেও যদি আমরা ভ্রান্ত আকিদা-মানহাজের কারো কাছ থেকে ইলম্ নিতে চাই তবে পারব। But that must be Justified by an authentic Islamic scholar. বিপরীতটা করলে যা হয়, “…শয়তানরাই কুফরী করেছিল। তারা মানুষকে যাদুবিদ্যা শিক্ষা দিত।” [বাক্বারাহ ১০২]।
কটাই বা মজর কিছু একটা বলল আর তা শুনেই গ্রহন করে ফেলা জ্ঞানীর কাজ নয়। যতক্ষন না সেটা অতি বিশ্বস্ত আহলুল সুন্নাহ ওয়াল জামাতের কোন আলেম দ্বারা স্বীকৃত না হয়। হাসান বছরী (রহঃ) বলেন, “শয়তান দু’প্রকার; জিন শয়তান সর্বদা মানুষের মনে ধোঁকা দেয়। আর মানুষ শয়তান প্রকাশ্যে ধোঁকা দেয়।” [তাফসীরে কুরতুবী, সূরা নাস দ্রঃ]
সুতরাং মোদ্দা কথা হল— শয়তান হোক বা ইনসান, কারো কাছ থেকে দ্বীনি ইলম্ নিলে তা বিশ্বস্ত আলেম দ্বারা নিরীক্ষণ করিয়ে নেয়া অত্যাবশ্যক। ভুলে গেলে চলবেনা- এই শয়তানই কিন্তু আদম (আঃ) কে কথিত ইলম্ দিয়ে জান্নাত হতে বিতাড়িত করিয়েছিল! আল্লাহ বলেন, “সে আদম (আঃ)-কে এই বলে কুমন্ত্রণা দিল যে, হে আদম! আমি কি তোমাকে বলে দেব অনন্ত জীবনপ্রদ বৃক্ষের কথা এবং অক্ষয় রাজ্যের কথা?” [সূরা ত্বা হা/ ১২০]

নিউইয়র্ক-আবু জাসরাহ

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here