সংকটাপন্ন অবস্থায় জামায়াত

0
253

78775_f6

নিজস্ব প্রতিবেদক, সময় সংবাদ বিডি

ঢাকা: নানামুখী চাপে থাকা জামায়াত দুশ্চিন্তায় পড়েছে নতুন করে। এমনিতেই সাম্প্রতিককালে বিএনপির সঙ্গে টানাপোড়েন চলছিল দলটির। জামায়াতকে ত্যাগের জন্য দেশের ভেতরে-বাইরে নানামহল থেকে চাপ প্রয়োগ করা হচ্ছিলো বিএনপির ওপর। প্রকাশ্যে বিষয়টি এড়িয়ে গেলেও বিএনপির অনেকেই চান জামায়াত যেন জোট ত্যাগ করে। বিরোধী জোটের নীতি নির্ধারণে জামায়াতের ভূমিকাও কমে আসতে থাকে। দলটি হয়ে পড়ে অনেকটা গুরুত্বহীন।

তাই এই মূহর্তে কিছুটা সংকটাপন্ন অবস্থায় আছে জামায়াত। সেটা বলাই যায়। এরই মধ্যে অনেকটা অকার্যকর হয়ে গেছে ২০ দলীয় জোট। তবে সর্বশেষ ভারতীয় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সফরের সময় বিএনপি-জামায়াতের দূরত্বের বিষয়টি স্পষ্ট হয়েছে নতুন করে। বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার নেতৃত্বে দলটির একটি প্রতিনিধি দল বৈঠক করে নরেন্দ্র মোদির সঙ্গে। ভারতীয় প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে একান্ত বৈঠক হয় খালেদা জিয়ার। এ বৈঠকের পরে বিএনপির পক্ষ থেকে সন্তোষ প্রকাশ করা হয়। ভারতের সঙ্গে বাংলাদেশের সম্পাদিত বিভিন্ন চুক্তি নিয়েও কোন আপত্তি জানানো হয়নি বিএনপির পক্ষ থেকে।

তবে জামায়াতের পক্ষ থেকে দলটির ভারপ্রাপ্ত আমির মকবুল আহমেদ এক বিবৃতিতে বলেন, ১৯টি চুক্তি-সমঝোতা-স্মারক সবই হয়েছে ভারতের প্রয়োজনে। ওদিকে, ভারতের পররাষ্ট্র সচিব ড. সুব্রামানিয়াম জয়শঙ্কর ঢাকা ত্যাগের আগে সংবাদ সম্মেলনে যা বলে গেছেন তাও ইঙ্গিতবহ। তার মন্তব্য ছিল- ভারত গণতন্ত্রের পক্ষে কিন্তু সন্ত্রাস ও মৌলবাদের বিপক্ষে। ভারত প্রশ্নে বিএনপির নীতি এবং  ভারতীয় থিঙ্কট্যাঙ্কের বাংলাদেশ নীতি নতুন করে দুশ্চিন্তায় ফেলেছে জামায়াতকে। দলের সেক্রেটারি জেনারেল আলী আহসান মোহাম্মদ মুজাহিদের রায়ের দিন ঘনিয়ে আসায়ও উদ্বেগে রয়েছে দলটি।

বিএনপি ও জামায়াতের সূত্রে জানা গেছে, দল দুটির মধ্যে যোগাযোগ এখন গত কয়েক বছরের মধ্যে সর্বনিম্ন পর্যায়ে রয়েছে। তবে জোট ভাঙার ঘোষণা দেয়ার দায় নিতে দুই পক্ষেরই অনিহা রয়েছে। জামায়াতের একটি সূত্র বলছে, জামায়াতের সিদ্ধান্ত হচ্ছে দলটি ২০ দলীয় জোট ত্যাগের কোন ঘোষণা দেবে না। তবে বিএনপি তাদের জোট থেকে বাদ দিলে তাদের আপত্তি থাকবে না। অন্যদিকে, বিএনপিও জামায়াতকে জোট থেকে বাদ দেয়ার ঘোষণা নিয়ে দ্বিধায় রয়েছে। দীর্ঘদিনের মিত্রতা এবং ডানপন্থি ভোটের হিসাবের বিষয়টি এক্ষেত্রে বড় বাধা হয়ে রয়েছে।

তবে পর্যবেক্ষকরা মনে করেন, কৌশলগত কারণে হলেও বিএনপির উচিত জামায়াতকে ত্যাগ করা। তা দলটির জন্য দেশীয় ও আন্তর্জাতিক উভয় ক্ষেত্রেই সুফল বয়ে আনবে। কয়েক দিন আগে বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা ব্যারিস্টার শাহজাহান ওমরও খালেদা জিয়ার প্রতি আহ্বান জানান জোট ভেঙে দেয়ার জন্য। ছাত্রদলের এক নেতার সঙ্গে কথোপকথনে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদও একই মনোভাব প্রকাশ করেন।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here