স্বপ্নে পাওয়া ফজিলতের মিথ্যা ম্যাসেজ, বিশ্বাস করা শির্ক

0
204

সময় সংবাদ বিডিঃ-

ঢাকাঃ যেখানে আল্লাহ ছাড়া কেউ গায়েবের খবর জানেন না সয়ং রাসূল (সঃ)-ও গায়েবের খবর জানতেন না।।আল্লাহ তায়ালা কুরআনে স্পষ্ট ভাষায় বলেছেন তিনি ছাড়া কেউ গায়েবের মালিক নয়।সেখানে এই পোষ্ট ২০ জনের সাথে শেয়ার করলে ৯ দিনের মধ্যে সুসংবাদ আর না শেয়ার করলেো ১৫ বছরেও কোন ভালো সংবাদ পাওয়া যাবে না। এমন গায়েবি বিষয় বিশ্বাস করা স্পষ্ট শির্ক।।
.
আল্লাহ কুরআনে বলেনঃ
(হে নবী!) আপনি বলুন’ আমার নিজের ভাল মন্দের মালিকও আমি নই । তবে আল্লাহ পাক যা চান, তাই হয় । যদি আমি অদৃশ্য বিষয় সম্পর্কে অবগত থাকতাম, তাহলে আমি অনেক ফায়েদাই হাসিল করে নিতে পারতাম এবং কোন অকল্যাণি আমাকে স্পর্শ করতে পারত না । ( সুরা আরাফঃ ১৮৮)
.
আল্লাহ তায়ালা অন্য আয়াতে বলেন……
আমি তো তোমাদের এ কথা বলি না যে, আমার কাছে আল্লাহর ধনভাণ্ডার রয়েছে এবং না আমি অদৃশ্য বিষয়ে অবগত আছি । (সুরা হুদঃ৩১)
.
আরেকটি আয়াতে বলা হয়েছে ……
হে নবী আপনি বলুন! আল্লাহ তায়ালা ছাড়া আসমান ও জমিনে যা কিছু আছে তাদের কেউ অদৃশ্য জগতের কিছু জানে না । তারা এটাও জানে না যে, কবে তাদের কবর থেকে পুনরুঙ্খান করা হবে । (সুরা নামলঃ৬৫)
.
আল্লাহ তায়ালা আরো বলেন…….
গায়েবের চাবিকাঠি তাঁর হাতেই সংরক্ষিত রয়েছে …. (সুরা আনআমঃ৫৯)
.
বলুন, আমি তো তোমাদের এ কথা বলি না যে, আমার কাছে আল্লাহ পাকের বিপুল ধনভাণ্ডার রয়েছে । আর না এ কথা বলি যে আমি গায়েবের কোন সংবাদ জানি । (সুরা আনআমঃ৫০)
.
গায়েব সংক্রান্ত সমস্ত জ্ঞান তো একমাত্র আল্লাহ পাকের জন্যে (সুরা ইউনুসঃ২০)
.
এতো সব স্পষ্ট দলীল থাকতে যারা না বুঝে এমন সব চীরকুট প্রচার করে তারা স্পষ্ট শির্কে লিপ্ত।।শির্ক সম্পর্কিত কিছু আয়াত নিন্মে তুলে ধরা হলো।।
.
শিরকের ভয়াবহ পরিণামঃ
শিরকের মাধ্যমে সৃষ্টিকে স্রষ্টার আসনে বসানো হয়, যা মহা অপরাধ এবং রীতি মত অবিচার।
.
আল্লাহ বলেনঃ
“নিশ্চয়ই শিরক একটি মস্ত বড় অন্যায়” (সুরা লোকমানঃ১৩)
.
আল্লাহ তা’আলা শিরকের গুনাহ তওবা ছাড়া ক্ষমা করবেন না।
আল্লাহ বলেন-
“নিশ্চয়ই আল্লাহ তা’আলা তার সাথে শিরক করার অপরাধ ক্ষমা
করবেন না। এ ছাড়া অন্য সকল গুনাহ যাকে ইচ্ছা ক্ষমা করে
দিবেন” (সুরা নিসাঃ৪৮)
.
আল্লাহ তা’আলা মুশরিকদের জন্যে জান্নাত হারাম বলে ঘোষণা করেছেন:
“নিশ্চয় যে আল্লাহ’র সাথে শিরক করবে আল্লাহ তার উপর জান্নাত হারাম করে দেবেন এবং তার ঠিকানা হবে জাহান্নাম। জালিমদের কোন সাহায্যকারী নেই।” (সূরা মায়িদাহঃ ৭২)
.
শিরক সমস্ত আমলকে বিনষ্ট করে দেয়।
আল্লাহ বলেনঃ“আর যদি তারা শিরক করে তাহলে তাদের সকল আমল বিনষ্ট হয়ে যাবে।” (সুরা আনআমঃ৮৮)
.
প্রিয় ভাই ও বোনেরা অবশ্যই নিজের ঈমান হেফাজত করতে এই সকল বিষয় এরিয়ে চলুন কুর’আন সুন্নাহর আলোতে জীবন গড়ুন। আল্লাহ আমাদের সকলকে ছোট / বড়, প্রকাশ্য / গপন শির্ক থেকে হেফাজত করুন। আমীন।

✍️-আবু লাইবাহ (শুভ)

 

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here