ইমাম খোমেইনি (র.)-এর মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে আলোচনা সভা

0


ইমাম খোমেইনি (র.)-এর মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে আলোচনা সভায় অতিথিবৃন্দ
ইমাম খোমেইনি (র.)-এর মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে আলোচনা সভায় অতিথিবৃন্দ

স্টাফ রিপোর্টার, সময় সংবাদ বিডি-ঢাকা: ইসলামি প্রজাতন্ত্র ইরানের প্রতিষ্ঠাতা হযরত ইমাম খোমেইনি (রহ.)-এর ২৮তম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে ২ জুন, ২০১৭, শুক্রবার, বিকাল ৪ টায় বাংলাদেশ মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশন (বিএমএ) মিলনায়তনে ইরান সাংস্কৃতিক কেন্দ্রের উদ্যোগে ‘ইমাম খোমেইনি (র.): ঐক্য, শান্তি ও সংলাপের অগ্রদূত’ শীর্ষক আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়।
সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের প্রধানমন্ত্রীর রাজনৈতিক বিষয়ক উপদেষ্টা জনাব এইচ টি ইমাম। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় মসজিদের খতিব ড. সৈয়দ মুহাম্মদ এমদাদ উদ্দিন এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠেয় এ আলোচনা সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশে নিযুক্ত ইসলামি প্রজাতন্ত্র ইরানের রাষ্ট্রদূত ড. আব্বাস ভায়েজী দেহনাভী ও ইউনিভার্সিটি অব ইনফরমেশন টেকনোলজি অ্যান্ড সায়েন্সেস (ইউআইটিএস) এর উপাচার্য অধ্যাপক ড. মোহাম্মেদ সোলায়মান। অনুষ্ঠানে প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগের অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ ছিদ্দিকুর রহমান খান। এ ছাড়াও আলোচনা রাখেন বিশিষ্ট ইসলামি চিন্তাবিদ ও গবেষক ড. মুহাম্মাদ ঈসা শাহেদী।
অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির ভাষণে প্রধানমন্ত্রীর রাজনৈতিক বিষয়ক উপদেষ্টা এইচ টি ইমাম বলেন, ইরানের ইসলামি বিপ্লবের রুপকার ইমাম খোমেইনি ছিলেন জনমানুষের নেতা। তাঁর বিপ্লব আমাদেরকে প্রেরণা দিয়ে চলেছে।
অনুষ্ঠানে ইউনিভার্সিটি অব ইনফরমেশন টেকনোলজি অ্যান্ড সায়েন্সেস (ইউআইটিএস) এর উপাচার্য অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ সোলায়মান বলেন, ইমাম খোমেইনি ছিলেন, বিশ্ব ইতিহাসের একজন সফল নায়ক। তিনি সা¤্রাজ্যবাদী শক্তির মোকাবেলায় দাঁড়িয়ে ইরানে ইসলামি শাসন প্রতিষ্ঠা করতে পেরেছিলেন। তিনি তৃতীয় বিশ্বের মানুষকে বিপ্লবী চেতনায় অনুপ্রাণিত করেছেন।
অনুষ্ঠানে ঢাকাস্থ ইরানের রাষ্ট্রদূত ড. আব্বাস ভায়েজী দেহনাভী বলেন, ইমাম খোমেইনি ছিলেন শান্তিপূর্ণ গণবিপ্লবের প্রবক্তা। তিনি ইরানের তরুণসমাজকে নিরস্ত্র বিপ্লবে উদ্বুদ্ধ করেন এবং এই বিপ্লবের বিজয় ছিনিয়ে আনেন।

অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণকারী দর্শকবৃন্দ
অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণকারী অতিথিবৃন্দ

অনুষ্ঠানের শুরুতে স্বাগত বক্তব্য রাখেন ঢাকাস্থ ইরান সাংস্কৃতিক কেন্দ্রের কালচারাল কাউন্সেলর সৈয়দ মুসা হুসাইনি। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ও ইউনিভার্সিটি অব ইনফরমেশন টেকনোলজি অ্যান্ড সায়েন্সেস (ইউআইটিএস) এর বোর্ড অব ট্রাস্টিজের উপদেষ্টা অধ্যাপক ড. কে এম সাইফুল ইসলাম খান, রেজিস্ট্রার মোহাম্মদ কামরুল হাসান, ল্যাঙ্গুয়েজ সেন্টারের পরিচালক ইরশাদ আহমেদ শাহীনসহ দেশবরেণ্য শিক্ষাবিদ ও ব্যক্তিবর্গ এ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here