করোনা মোকাবিলায় ভরদুপুরে হাটের মাঠে চেয়ারম্যান মেরাজ

0



ডেস্ক নিউজ, সময় সংবাদ বিডি-
রাজশাহীঃ রাজশাহীর বাঘা উপজেলার কেশবপুর বাজারে করোনা ভাইরাস প্রতিহতে দুরত্ব নিশ্চিতে চিহ্ন একে দিলেন পাকুড়িয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ও জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মেরাজ সরকার।

আজ শুক্রবার সাপ্তাহিক হাটবার হওয়ায় জনসাধারণের নিরাপত্তায় ভরদুপুরে নেতাকর্মীদের সাথে নিয়ে তিনি সতর্কতা অবলম্বনে নিরাপদ দুরত্বে এই চিহ্ন একে দেন। এবং হাটে আগত সকলকেই বিষয়টি ভালোভাবে অবগত করেন তিনি।

করোনা ভাইরাস থেকে বাচঁতে সবাই যখন ঘরে ঘরে অবস্থান করছেন ঠিক তখন জনসাধারণের নিরাপত্তায় ছুটে এলেন সর্ব কনিষ্ঠ এই ইউনিয়ন চেয়ারম্যান মেরাজ সরকার। তার এমন সাহসিকতায় হাট এলাকায় প্রশংসিত হয়েছেন তিনি।

এর আগে করোনা মোকাবিলায় এলাকার অসহায় ও দরিদ্র মানুষের পাশে দাড়িয়েছেন, বাড়িয়েছেন সহযোগিতার হাত। কর্মহীন মানুষদের দিয়েছেন খাদ্য সামগ্রী ও নগদ অর্থ।

জেলা ছাত্রলীগের এই নেতা সামাজিক সচেতনতায় কাজ করে যাচ্ছেন অবিরাম ভাবে। সার্বিক দিক বিবেচনায় তিনি এলাকাবাসীর কাছে অনেক প্রিয় একজন মানুষ হিসেবে বিবেচিত হয়েছেন।

এবিষয়ে মেরাজ সরকার সময় সংবাদ বিডিকে বলেন, দেশের এই দুর্দিনে মানুষের পাশে দাড়ানো আমাদের নৈতিক দায়িত্ব বলে আমি মনে করি। জনগনের দুঃখ কষ্টে তারা জনপ্রতিনিধিদের সহযোগিতা সব সময় কামনা করেন। তাই তাদের পাশে আমাদের থাকতেই হবে।

এসময় তিনি সমাজের বিত্তবানদের এগিয়ে আসার আহবান জানান।

তিনি বলেন, আজকে কেশবপুর হাটের দিন, দুরত্ব নিশ্চিত করতে আমাদের এটা সামান্য প্রচেষ্টা মাত্র। পাকুড়িয়া ইউনিয়নে মোটামুটি বড় হাট বসে তিন যায়গায়। কিশোরপুর, কেশবপুর ও পানিকামড়া। কিশোরপুর ও কেশবপুরে মাঠ আছে কিন্তু পানিকামড়ায় মাঠ নাই। তারপরেও চেষ্টা করে যাবো যতটুকু পারি। নিত্য প্রয়োজনীয় কাঁচাবাজর করতে আসবে এটাই স্বাভাবিক। তবে আমাদেরকে সচেতন থাকতে হবে।

তবে এই কাজে সার্বিক সহযোগিতা করায় রুবেল, শিমুল, রতনসহ সংশ্লিষ্ট সবাইকে আন্তরিক ধন্যবাদ জানান তিনি।

পরিশেষে তিনি বলেন, মহান রাব্বুল আলামিন আমাদের প্রতি সহায় হোন। আমিন।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here