কেশরহাটে প্রতীক পেয়েই প্রচারণা শুরু মেয়র প্রার্থীদের

0


আসন্ন কেশরহাট পৌরসভার নির্বাচনে মেয়র ও কাউন্সিলর এবং সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিল প্রার্থীদের যাচাই-বাছাই শেষে প্রতীক বরাদ্দ দিয়েছে নির্বাচন কমিশন। সে অনুযায়ী প্রার্থীরা যার যার নির্বাচনী মার্কা পেয়েছেন। আর মার্কা হাতে নিয়েই শুরু করেছেন প্রচারণা।

রবিবার (১১ জানুয়ারী) নির্বাচন কমিশনের পূর্বনির্ধারিত দিনে কেশরহাট পৌরসভার সকল প্রার্থীকে নির্বাচনী প্রতীক বরাদ্দ দেওয়া হয়।

রাজশাহী জেলা নির্বাচন কমিশন ও প্রার্থী সূত্রে প্রতীক বিতরণ করার পর প্রত্যেক প্রার্থীই নিজ নিজ প্রচারণা চালাতে পারবে বলে জানা গেছে।

সরেজমিনে, ইতিমধ্যেই মেয়র প্রার্থীদের পোস্টারে পোস্টের প্রচারণা আর মাইকিং করে প্রচারণা শুরু হয়েছে। এ পৌরসভার নির্বাচনে মেয়র পদে দলীয় মনোনয়নের পাশাপাশি স্বতন্ত্র বা বিদ্রোহী প্রার্থীও রয়েছেন।

ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগের মনোনীত নৌকার প্রার্থী শহিদুজ্জামান শহিদ নৌকা মার্কা নিয়ে নির্বাচনী প্রচারণা শুরু করেছেন। সেক্ষেত্রে একই দলের বিদ্রোহী প্রার্থী রুস্তম আলী প্রামাণিক নারিকেল গাছ মার্কা নিয়ে নির্বাচনী প্রচারণা শুরু করেছেন।

এ নির্বাচনে বিএনপি মনোনীত ধানের শীষের প্রার্থী হয়েছেন প্রভাষক খুসবয় রহমান। তিনি পোস্টার সাটানোর পাশাপাশি মাইকিং এমনকি পথসভার মাধ্যমে প্রচারণা শুরু করেছেন। আর নিষিদ্ধ ঘোষিত জামাত থেকে জগ মার্কা নিয়ে মাইকিং এর মধ্যেই সীমাবদ্ধ থেকে প্রচারণা শুরু করেছেন হাফিজুর রহমান আকন্দ।

জানা গেছে, প্রায় ১৬ হাজার ভোটারের এ পৌরসভায় ৯ টি ওয়ার্ডে ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। ইতিমধ্যে ৩ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর প্রার্থী হাফিজুর রহমান বকুল বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হতে চলেছেন।

এছাড়া প্রত্যেক ওয়ার্ডে নির্বাচনী একাধিক কাউন্সিলর প্রার্থী ভোট যুদ্ধে অংশ নিয়েছেন বলে জানা গেছে।

উল্লেখ্য, আগামী ৩০ জানুয়ারী কেশরহাট পৌরসভার ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here