কেশরহাটে প্রধান শিক্ষকের ভূমিকায় সেবা পাচ্ছে এলাকাবাসি

0


জুয়েল রানা : রাজশাহী জেলার মোহনপুর উপজেলার কেশরহাট পৌরসভায় দিনে দিনে গড়ে উঠতে শুরু করেছে কতিপয় কয়েকটি মার্কেট। এরই ধারাবাহিকতায় আগামীতে কেশরহাট উচ্চ বিদ্যালয়ের অর্থনৈতিক অবকাঠামো উন্নতি করনের লক্ষ্যে অবহেলিত ও দখলবাজদের হাত থেকে জমি উদ্ধার করে মার্কেট নির্মানে অক্লান্ত পরিশ্রম করে যাচ্ছেন প্রতিষ্ঠানের প্রধান শিক্ষক শফিকুল ইসলাম। আর মার্কেটের কাজ সুষ্ঠ ভাবে পরিচালনায় প্রধান শিক্ষকের পাশাপাশি অগ্রণী ভূমিকা পালন করছেন উক্ত পতিষ্ঠানের সহকারি প্রধান শিক্ষক মোঃ শহিদুল ইসলাম। মার্কেট নির্মানে অর্থের সু-ব্যবহার ও কাজের মান টেকশই নিশ্চিত করতে সার্বক্ষণিক তর্থবাধনে নিযুক্ত থাকেন তারা। করোনায় প্রাদুর্ভাবে যখন প্রতিষ্ঠান বন্ধ সেই সময়কে কাজে লাগিয়ে মার্কেট নির্মানে এমন মহৎ ভূর্মিকা রাখায় এলাকাবাসির প্রশংসার পাশাপাশি ব্যাবসায়ীদের অন্তরে স্থানও করে নিয়েছেন তারা।

বিগত দিনে মার্কেটের দোকান গুলো ব্যাবসায়ী কাজে ব্যবহার করা হলেও রোববার সকালে দ্বিতীয় তলায় উদ্বোধন করা হলো উত্তরা ব্যাংক লিমিটেডে এর একটি শাখা।

এসময় মোহাম্মদ রবিউল ইসলাম, ব্যাবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহী উত্তরা ব্যাংক লিমিটেড বলেন, আমরা কেশরহাট বাসিকে সেবা দিতে এই ব্যাংক এর কার্যক্রম পরিচালনা হবে। কেশরহাট উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের আন্তরিকতা ও পরিশ্রমে কারনে আমরা দ্রুত সেবা দিতে স্থান পেলাম। আগামীতেও অনেক প্রতিষ্ঠান এই মার্কেট থেকে সেবা প্রদানের জন্যে এগিয়ে আসবে বলে আমি বিশ্বাস করি।

এব্যাপারে কেশরহাট উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক বলেন, আমি বর্তমানে কেশরহাট উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের দ্বায়িত্বে আছি। আগামী দিনে অবশর নিবো। কিন্তু আমি প্রতিষ্ঠানের সাবেক ছাত্র আজ প্রতিষ্ঠান প্রধান হয়ে অফুরন্ত ভালোবাসার জায়গা থেকে এই মার্কেট নির্মানে এগিয়ে আসি। রাজশাহী-নওগাঁ মহাসড়কে পাশে বিশাল মার্কেট টি নির্মাণ করতে গিয়ে বিভিন্ন বাঁধার সম্মুখীন হতে হয়েছে। তবে আমরা পিছ পা হয়নি আগামীতেও হবোনা। প্রতিষ্ঠানের উন্নয়নে ও এলাকায় বিভিন্ন সেবা কার্যক্রম প্রদানের জন্যে এই মার্কেট একটি উন্নত মার্কেট হিসেবে রুপান্তরিত করবো ইনশাআল্লাহ। এজন্য আমি এলাকাবাসীর সর্বিক সহযোগীতা কামনা করছি।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here