ত্রিদেশীয় সিরিজে বাংলাদেশের প্রথম জয়

0

বাংলাদেশকে বড় জয় উপহার দিলেন সৌম্য-মোস্তাফিজ

স্পোর্টস ডেস্ক, সময় সংবাদ বিডি:-ত্রিদেশীয় সিরিজের শুরুতে বৃষ্টির জন্য বাংলাদেশ-আয়ারল্যান্ড ম্যাচটি পরিত্যক্ত হয়েছিল। তাই তখন সেরকম কিছুই করে দেখাতে পারেনি বাংলাদেশ। কিন্তু পরের ম্যাচে ভালোভাবেই জবাব দিয়েছেন টাইগাররা।

শুক্রবার ডাবলিনের মালাহাইডে আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে টস জিতে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন মাশরাফি বিন মুর্তজা। মাঠে নেমে মোস্তাফিজ, সানজামুল, মাশরাফিদের দাপটে ১৮১ রানে গুটিয়ে যায় আইরিশরা। ফলে বাংলাদেশের লক্ষ্য দাঁড়ায় ১৮২ রান। আর এই ছোট্ট টার্গেট তাড়া করতে নেমে হেসে খেলে সহজেই ২ উইকেট হারিয়ে জয়ের বন্দরে পৌঁছে যায় বাংলাদেশ । ৮ উইকেটের বড় ব্যবধানে জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে লাল-সবুজের দল।

ব্যাটিংয়ে নেমে দুই ওপেনার তামিম ইকবাল ও সৌম্য সরকার আইরিশ বোলারদের নিয়ে রীতিমতো খেলেছেন। নামিয়ে আনেন পাড়া-মহল্লার বোলারের কাতারে। উদ্বোধনী জুটিতে তারা মাত্র ১৩.৫ ওভারে ৯৫ রান যোগ করেন। জুটি ভাঙে তামিম ৫৪ বলে ৬ চারে ৪৭ রান করে আউট হলে।

দ্বিতীয় উইকেট জুটিতে সৌম্য সাব্বির ছিলেন আগ্রাসী। জুটিতে ১১.১ ওভারে যোগ করেন ৯০। সাব্বির ৩৪ বলে ১ ছয় ও ৩ চারে ৩৫ রান করে যখন আউট হন বাংলাদেশ তখন জয় থেকে মাত্র ১১ রান দূরে। সে কাজটিই করেন সৌম্য ও মুশফিক। সৌম্য শেষ পর্যন্ত অপরাজিত থাকেন ৮৭। তার ৬৮ বলের ইনিংসে ছিল ২ ছক্কা ও ১০ চার। আগের ম্যাচে তিনি করেছিলেন ৬১ রান। মুশফিক অপরাজিত থাকেন ৩ রানে ।

এর আগে বোলিং করতে নেমে আয়ারল্যান্ড শিবিরে প্রথম আঘাত হানেন মোস্তাফিজ। কাটার মাস্টারের অফ স্ট্যাম্পের বাইরের বলে খোঁচা মেরে শূন্য রানে সাব্বির রহমানের হাতে ধরা পড়েন পল স্টার্লিং।

এরপর দ্বিতীয় উইকেট পান মোসাদ্দেক হোসেন। তার বলে ক্যাচ দিয়ে ২২ রানে সাজঘরে ফিরে যান উইলিয়াম পোর্টারফিল্ড। বোলিংয়ে যখন সাকিব আল হাসান আসলেন, তখন তার বল মিড উইকেট দিয়ে উড়িয়ে দেন অ্যান্ডি ব্যালবারনি। নিজের দ্বিতীয় ওভারে সাকিব তার প্রতিশোধ নিলেন। দারুণ এক ডেলিভারিতে ব্যালবারনিকে (১২) বোল্ড করেন।

এর আগে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে আগের ম্যাচে শতক করা নায়াল ও’ব্রায়েনকে শূন্য রানে জীবন দিয়েছেন মুশফিকুর রহিম। সাকিব আল হাসানের প্রথম ওভারেই ক্রিজে আসা বাঁহাতি ব্যাটসম্যানের ব্যাটের কানায় লেগে আসা ক্যাচ গ্লাভসে নিতে পারেননি বাংলাদেশের উইকেটরক্ষক। পরে কাজটি করলেন মোস্তাফিজ। নায়াল ও’ব্রায়েনকে ৩০ রানে সাজঘরে ফেরান তিনি। তামিম ইকবালকে ক্যাচ দেন তিনি।

এরপর ওয়ানডে অভিষেকের প্রথম ওভারেই উইকেট পান সানজামুল ইসলাম। অর্ধশতক করার আগেই এড জয়েসকে ফেরালেন তিনি। ৪৬ রানে সানজামুলের বলে তামিম ইকবালের হাতে ক্যাচ দিয়ে সাজঘরে ফেরেন।

আবারো আঘাত হানলেন মোস্তাফিজ, তার বলে মোসাদ্দেক হোসেনের চমৎকার ক্যাচে পরিণত হন আইরিশ অলরাউন্ডার কেভিন ও’ব্রায়েন। ১০ রান করে ফিরলেন কেভিন। ডানহাতি এই ব্যাটসম্যান মোস্তাফিজের তৃতীয় শিকার। এবার যেন বিধ্বংসী হয়ে ওঠলেন মোস্তাফিজ। তার চতুর্থ শিকার হলেন গ্যারি উইলসন। ৬ রানে তাকে ক্যাচে পরিণত করেন।

আবারে জ্বলে ওঠলেন সানজামুল, বাঁহাতি এই পেসার ১২ রানে এলবিডব্লিউর ফাঁদে ফেলেছেন ব্যারি ম্যাকার্থিকে।

এদিকে আগের ম্যাচে বাজে দিন কাটানো মাশরাফি আজ ফিরেছেন চেনা ছন্দে। বাংলাদেশ অধিনায়ক জোড়া উইকেট নিয়ে দুইশ রানের আগেই থামিয়েছেন আয়ারল্যান্ডকে। মাশরাফির ওপর চড়াও হতে গিয়ে মুশফিকুর রহিমকে সহজ ক্যাচ দেন জর্জ ডকরেল। ১১ নম্বর ব্যাটসম্যান পিটার চেইস ফিরেন উইকেটরক্ষকের ডাইভিং ক্যাচে।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here