ধর্মঘটে অচল খুলনা

0


image-22190স্টাফ রিপোর্টার, সময় সংবাদ বিডি-

ঢাকা: পরিবহন ধর্মঘটের কারণে খুলনা বিভাগে যান চলাচল অনির্দিষ্ট কালের জন্য বন্ধ থাকায় চরম জনদুর্ভোগ নেমে এসেছে যাত্রী এবং সাধারণ মানুষ গুলোর ওপর।এমনকি সাধারন মানুষ তাদের কর্মস্হলে যেতে পারছেন না।

ঢাকার একটি হোটেলে মালিক সমিতি এবং শ্রমিক সংগঠনের যৌথ সভা থেকে সোমবার রাত ১১টা ১৫ মিনিটে মঙ্গলবার ভোর থেকে সারাদেশে পরিবহন ধর্মঘটের ডাক দেওয়া হয়।

ধর্মঘট সফল করার জন্য প্রত্যেক সড়কের মোড়ে মোড়ে আন্দোলনকারীরা ঘিরে রেখেছে।যত গুলো বাস স্ট্যান্ড আছে সব খানে পাহারা বসিয়েছে। এমনকি অভ্যন্তরীণ এবং দূরপাল্লার পরিবহন বন্ধের পাশাপাশি ছোট গাড়ি বা ব্যক্তিগত পরিবহন চলাচলেও বাধা দেওয়া হচ্ছে।

মংলা বন্দর কর্তৃপক্ষের প্রকৌশলী নাসির উদ্দিন সময় সংবাদকে বলেন, খুলনা থেকে অফিসের জন্য বের হয়েও পরিবহন ধর্মঘটের কারণে অফিসে যেতে পারেননি। কোনও বাস ছাড়ছে না। কিন্তু যেতে না পেরে দুর্ভোগে পড়েছেন।

এভাবে সোনাডাঙ্গা ও রূপসা বাস স্ট্যান্ডে বাগেরহাট, মোংলা, মোড়েলগঞ্জ, পিরোজপুর ও বরিশালসহ দক্ষিণাঞ্চলের যাত্রীরা অপেক্ষার প্রহর গুণছেন। তবে কাউকে কাউকে ইজিবাইকে মোটা ভাড়া গুণে অনিশ্চিত যাত্রা করতে দেখা গেছে।

চলচ্চিত্রকার ও সাংবাদিক মিশুক-মনির নিহতের ঘটনায় বাস চালক জামির হোসেনের যাবজ্জীবন ও ট্রাক চালক মীর হোসেন মিরুর মৃত্যুদ-ের রায়ের প্রতিবাদে এ ধর্মঘটের ডাক দেওয়া হয়।

বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশন কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-সভাপতি ও খুলনা বিভাগীয় সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রহিম বক্স দুদু জানান, তারা সোমবার খুলনা বিভাগের ধর্মঘট প্রত্যাহারের সভায় আলোচনা করাকালীন খবর আসে, ঢাকার আদালতে সাভারে সড়ক দুর্ঘটনা সংক্রান্ত একটি মামলায় মীর হোসেন মিরুর মৃত্যুদণ্ডের রায় দেওয়া হয়েছে। এ খবর ছড়িয়ে পড়লে মালিক-শ্রমিকরা ক্ষুব্ধ হয়ে ওঠেন। পরে রাতে বৈঠকের পর দেশব্যাপী পরিবহন ধর্মঘট ডাকা হয়।

 

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here