ধসের শঙ্কায় কাঁপছে নেপাল

0

27-1430132118-himalaya

আন্তর্জাতিক ডেস্ক, সময় সবাদ বিডি

ঢাকা: কিছুতেই যেন কাটছে না হিমালয়কন্যা নেপালের দুর্দশার পালা। গত শনিবারের প্রবল ভূমিকম্পে সাজানো দেশটিকে প্রায় ধ্বংস করেও যেন ক্ষান্ত হচ্ছে না প্রকৃতি। এবার নতুন আতঙ্ক ধসের শঙ্কায় কাঁপছে নেপাল।

আবহাওয়া বিজ্ঞানীদের বরাতে টাইমস অব ইন্ডিয়া জানাচ্ছে, আসন্ন বর্ষা মৌসুমের শুরু থেকেই নেপালে পাহাড়ধস শুরু হবে। সেই ধসে আরো বিপদের সামনে পড়বে নেপাল। এ ব্যাপারে এরই মধ্যে নেপাল সরকারকে সতর্ক করেছেন বিভিন্ন দেশের বিজ্ঞানীরা।

বিজ্ঞানীরা সতর্কবার্তায় জানিয়েছেন, শক্তিশালী ভূমিকম্পের ফলে অনেক পাহাড়ের বিভিন্ন অংশ আলগা হয়ে গেছে। বর্ষা নামলেই সেই আলগা হয়ে যাওয়া অংশগুলো ভেঙে পড়বে। ফলে শুরু হবে প্রবল ধস।

ইউনিভার্সিটি অব মিশিগানের একদল বিজ্ঞানীর মতে, সবচেয়ে বেশি ধস নামবে নেপাল-তিব্বত সীমান্তের পূর্বাঞ্চলে ও মাউন্ট এভারেস্টের পশ্চিমাংশে। এতে সরাসরি ক্ষতিগ্রস্ত হবে উত্তর কাঠমান্ডুর বিশাল এলাকা। আর ধসের কবলে পড়বে নেপালের ১০ হাজারের বেশি এলাকা।

এরই মধ্যে অবশ্য পাহাড় ধসে পড়ার ঘটনা ঘটে গেছে। গতকাল বুধবার নেপালের উত্তরের মিয়াং অঞ্চলে পাহাড় ধসে প্রাণ হারিয়েছেন চারজন। মিয়াংয়ের বাসিন্দা ৮১ বছর বয়সী সত্যম জরুর বয়ানে টাইমস অব ইন্ডিয়া খবর ছেপেছে, ‘নেপালে কাঁপছে পাহাড়। পাহাড়ে সব সময়ই মৃদু কম্পন আর গুমগুম আওয়াজ।’

বিধ্বংসী ভূমিকম্পের জেরে হিমালয়ে শুরু হয়েছে তুষারধস। প্রবল ঝাঁকুনিতে মাউন্ট এভারেস্টের বেস ক্যাম্পের একাংশসহ হিমালয় পর্বতমালার একটি বিরাট অংশ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

পর্বতমালায় হাজার বছর ধরে জমে থাকা বরফের ওই বিরাট চাইগুলো গড়িয়ে নিচের দিকে নেমে এলে তার ধাক্কার প্রভাব পড়বে নেপালকে ঘিরে থাকা কম উচ্চতার পাহাড়গুলোতে। এই বিষয়ও ভাবাচ্ছে বিশেষজ্ঞদের।

এদিকে, গত ২৫ এপ্রিলের ওই ভয়াবহ ভূমিকম্পের ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ নেপালের মোট অর্থনীতির চেয়েও বেশি হতে পারে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন অর্থনীতি বিশেষজ্ঞরা। দেশটির অর্থনীতি মূলত পর্যটননির্ভর। প্রতিবছর আট লাখের বেশি বিদেশি পর্যটক দেশটিতে ভ্রমণের উদ্দেশ্যে যান। নেপালের জিডিপির ৩ শতাংশ অর্জিত হয় বিদেশি পর্যটকদের ব্যয় থেকে। আর আবাসনসহ অন্যান্য সেবা খাত থেকে দেশটি অন্তত ১৯ বিলিয়ন ডলার আয় করে, যা নেপালের জিডিপির প্রায় অর্ধেক।

 

 

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here