“নারিকেল গাছে উঠে ডাব খাবে রুস্তম”- এডভোকেট আব্দুস সালাম

0


কর্মীসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে দেন উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি এডভোকেট আব্দুস সালাম।

ডেস্ক নিউজ, সময় সংবাদ বিডি-
রাজশাহীঃ আসন্ন রাজশাহীর কেশরহাট পৌরসভা নির্বাচনে মেয়র পদে ক্ষমতাসীন আওয়ামীলীগ মনোনীত নৌকার প্রার্থী হয়েছেন শহিদুজ্জামান শহিদ। আর একই দলের মনোনয়ন প্রত্যাশি ছিলেন আরো দুইজন আওয়ামী লীগ নেতা। এদের একজন দলীয় সিদ্ধান্ত অনুযায়ী নৌকার পক্ষে নির্বাচনে একাত্মতা ঘোষণা করলেও অপরজন মোহনপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি রুস্তম আলী প্রামাণিক নারিকেল গাছ মার্কা নিয়ে স্বতন্ত্র বা বিদ্রোহী প্রার্থী হয়েছেন। দলীয় সিদ্ধান্তের বাইরে অবস্থান করায় “নারিকেল গাছে উঠে ডাব খাবে রুস্তম” বলে মন্তব্য করেছেন মোহনপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও উপজেলা চেয়ারম্যান এডভোকেট আব্দুস সালাম।

মঙ্গলবার (১২ জানুয়ারী) কেশরহাট উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে আয়োজিত নির্বাচনী পরিচালনা কমিটি গঠনের লক্ষে এক কর্মীসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ মন্তব্য করেন। এসময় তিনি বলেন, বিগত কর্মী সভায় এক কাতারে দাঁড়িয়ে দুই হাত তুলে দলীয় সিদ্ধান্তের প্রতি একাত্মতা জানিয়েছিলেন নৌকার মনোনয়ন প্রার্থীরা। সেখানে রুস্তম আলী প্রামাণিক উপস্থিত ছিলেন এবং হাত তুলেছিলেন। কিন্তু তিনি এখন নৌকার বিপক্ষে দাড়িয়েছেন। অথচ আরেক মনোনয়ন প্রত্যাশি শাহিনুর রহমান শাহিন আওয়ামী লীগের সিদ্ধান্তকে মেনে নিয়ে সকলকে সম্মান করেছেন।

প্রধান অতিথি যোগ করে বলেন, পাকা জিনিস আমাদের রুস্তম ভাই। আমরা তাকে উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি পদ দিয়েছি। কিন্তু অত্যন্ত দুঃখের বিষয়, ওয়াদা রাখলেননা রুস্তম আলী। তিনি উপজেলা আওয়ামী লীগ এমনকি স্থানীয় সংসদ সদস্য আয়েন উদ্দিনসহ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদককেও সম্মান না দিয়ে আজকে নারিকেল গাছ নিয়ে পোস্টার ছাপিয়েছেন।

তিনি বলেন, সম্মান অর্জন করা খুব কষ্ট। আমি ত্রিশ বছর কষ্ট করে উপজেলা চেয়ারম্যান এর সম্মান অর্জন করেছি। তাই আমি বিনীতভাবে অনুরোধ করছি, তুমি (রুস্তম আলী) আগামীতে এক মঞ্চে থেকে নৌকার ভোট করবে। আর সিদ্ধান্ত না মানলে আজীবনের জন্য দল থেকে নিষিদ্ধ করব।

এডভোকেট আব্দুস সালাম আরো বলেন, আমরা চাই সুষ্ঠু নির্বাচন হবে। দলের অভ্যন্তরে যারা দ্বায়িত্বসীল আছেন, আমরা যেন দেখতে নাই পাই যে, আপনারা কেউ নৌকার বিরুদ্ধে। সকলেই ঐক্যবদ্ধ থাকবে। আর যারা নৌকার বিরুদ্ধে থাকবে, আমরা সাংগঠনিক ব্যবস্থা সহ সকল ব্যবস্থা গ্রহন করব। দলের কর্মীর দারা আমরা কোন ক্ষতি মেনে নেবনা। এসময় তিনি বক্তব্যের অনেক ক্ষেত্রেই নারিকেল গাছের উদাহরণ দেয়ার পাশাপাশি ইনটু ক্লু যেন কেউ না হয় বলে নেতাকর্মীদের সতর্ক করেন।

কর্মীসভায় উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অধ্যক্ষ মফিজ উদ্দিন কবিরাজ, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও নৌকার প্রার্থী শহিদুজ্জামান শহিদ, রাজশাহী জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আলফোর রহমান, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান মেহবুব হাসান রাসেল, উপজেলা যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক খায়রুল ইসলাম, কেশরহাট পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি শাহেদুজ্জামান মুক্তা, সাধারণ সম্পাদক শফিকুল ইসলাম, মৌগাছি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আল-আমীন বিশ্বাস, বাকসিমইল ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুল মান্নান, মৌগাছি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি সবুর মাস্টার, উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মোরসেদ আলমসহ বিভিন্ন ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি সাধারণ সম্পাদক প্রমুখ।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here