বাকরেরহাট ফাজিল মাদ্রসায় তালা দিয়েছে এলাকাবাসি

0

kurigram

রোকনুজ্জামান মানু, সময় সংবাদ বিডি-

কুড়িগ্রামঃ উলিপুরে মাদ্রাসা অধ্যক্ষের সীমাহীন দুর্নীতি ও দীর্ঘদিন অনুপস্থিতির কারনে অনির্দিষ্টকালের জন্য তালা ঝুলিয়ে দিয়েছে শিক্ষক ও  এলাকাবাসি।

ঘটনাটি ঘটেছে, গতকাল শনিবার সকাল ১১ টায় বাকরেরহাট ফাজিল মাদ্রসায়। এ ঘটনায় মাদ্রাসা এলাকায় চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে।

কুড়িগ্রামের উলিপুরে বাকরের হাট ফাজিল ডিগ্রী মাদ্রাসায় গত ২০১০ সালে আব্দুর রাজ্জাক বিপুল পরিমান অর্থের বিনিময়ে অধ্যক্ষ পদে নিয়োগ পান। তিনি দায়িত্ব নিয়েই তৎকালীন সভাপতি ও  উপাধ্যক্ষ আবুল কাশেমকে কব্জায় নিয়ে নানামূখি দুর্নীতিতে জড়িয়ে পড়েন। শুরুতেই ইংরেজী প্রভাষক, সহকারি শিক্ষক, লাইব্রেরীয়ান ও পিয়ন পদে নিয়োগ দিয়ে প্রায় ১৮ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নেন।

ধুরন্ধর ঐ অধ্যক্ষ বর্তমান সভাপতি মতিয়ার রহমান মন্ডলের সাথে যোগসাজস করে অতিসম্প্রতি বাড়িতে বসেই গোপনে অখ্যাত পত্রিকায় নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি দিয়ে আরবি প্রভাষক, এবতেদায়ি ও সহকারি শিক্ষক পদে ৩ জনকে নিয়োগ দিয়ে আবার ২৫ লাখ টাকা আত্মসাত করেন। তার এসব দুর্নীতি নিষ্কন্ঠক করতে ব্যবস্থাপনা কমিটিতে দাতা সদস্য হিসেবে স্ত্রীসহ নিজের পরিবারেরা ১২ জনকে নতুন করে অন্তর্ভূক্ত করায় কমিটির অন্যান্য সদস্যসহ অভিভাবক মহল ও শিক্ষকদের মাঝে তোলপাড় শুরু হয়।

এরকম পরিস্থিতিতে গত ৬ সেপ্টেম্বর/১৪ তারিখ অভিভাবক সদস্যসহ এলাকাবাসী দুর্নীতি পরায়ণ ঐ অধ্যক্ষকে তার কার্যালয়ে অবরুদ্ধ করলে পুলিশ প্রশাসনের সহযোগীতায় ঐ যাত্রায় মুক্ত হন। এরপর থেকে তিনি মাদ্রাসায় আসা বন্ধ করে দেন। দীর্ঘ ৪ মাস ধরে অধ্যক্ষ প্রতিষ্ঠানে অনুপস্থিত থাকায় এবং দলাদলি চরমে উঠায় শিক্ষা ব্যবস্থা কার্যতঃ ভেঙ্গে পড়েছে।

এসব অভিযোগের প্রেক্ষিতে উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান হায়দার আলী মিঞা গত ১৮ ফেব্রুয়ারী প্রতিষ্ঠানটি সরেজমিন তদন্ত করে দুর্নীতির সত্যতা পেয়ে সংশ্লিষ্ট দপ্তরে একটি প্রতিবেদন দাখিল করেন।

এরপরেও কর্তৃপক্ষ নির্বিকার ভূমিকা পালন করায় এলাকাবাসি বাধ্য হয়ে গত ১৪ মার্চ মাদ্রাসাটিতে তালা ঝুলিয়ে দিয়েছে। এ ব্যাপারে অধ্যক্ষ আব্দুর রাজ্জাকের সাথে যোগাযোগের চেষ্টা করেও তাকে পাওয়া যায়নি।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here