বাগমারায় প্রেমের সম্পর্ক আর মোহনপুরে জেল

0


ডেস্ক নিউজ, সময় সংবাদ বিডি-
রাজশাহীঃ রাজশাহীর বাগমারা উপজেলার শালজোর এনায়েতপুর গ্রামের দশম শ্রেণিতে পড়ুয়া মেয়ে রিমঝিম(ছদ্মনাম) এর সাথে প্রেমের সম্পর্ক শুরু করে একই থানার বাড়ইপারা গ্রামের হাবিবুর রহমানের ছেলে আশরাফুল ইসলাম (২০)। এরপর প্রেমের সম্পর্কের একপর্যায়ে মোহনপুর উপজেলার কেশরহাট বাজারে এক আবাসিক হোটেলে গিয়ে পুলিশের হাতে আটক হয় দুজন।

গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে কেশরহাট বাজারের রাজু হোটেল থেকে বাগমারা উপজেলার এই প্রেমিক প্রেমিকা দুইজনেই মোহনপুর থানা পুলিশের হাতে আটক হয়।

যদিও মামলার দুই সাক্ষীর দেয়া খবরে থানা পুলিশ তাদের প্রাথমিক জিজ্ঞাসা করে থানা হেফাজতে নেয়। এবং পরবর্তীতে প্রেমিকা রিমঝিম (ছদ্মনাম) এর মা বাদি হয়ে তিনজনকে আসামী করে নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে মামলা দায়ের করেন। যার মামলা নম্বর- ১৭ তারিখ ২৩/০৪/২০২০

এদিকে, মেয়ের মায়ের দায়ের করা মামলায় তিন আসামীর ১. নম্বর  আসামী আশরাফুল ইসলাম (২০)কে আটক দেখিয়ে শুক্রবার আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে প্রেরণ করে মোহনপুর থানা পুলিশ। অপর দুইজন মোহন ও পলাশ এখনো পালাতক আছেন বলে থানা সুত্রে জানা গেছে।

মামলার বিষয়ে জানতে চাইলে মোহনপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোস্তাক আহম্মেদ জানান, এক নাবালীকা ১৪ বছরের মেয়েকে প্রেমের ফাঁদে ফেলে হোটেলে আনার পর স্থানীয় লোকজন তাদের ধরে থানায় খবর দেয়। পরে থানার এস আই মিজান ঘটনাস্থল থেকে তাদের আটক করে থানায় নেয়।পরে মেয়ের মা বাদি হয়ে তিনজনকে আসামি করে মামলা দায়ের করে। মামলা দায়েরের প্রেক্ষিতে আসামী আশরাফুল ইসলামকে আটক দেখিয়ে আদালতের পাঠানো হয়েছে।

এসময় তিনি কুরুচিপূর্ণ এসব কাজ থেকে তরুনদের বের হয়ে আসার আহবান জানান। আর এইধরনের কাজ করলে আমার কাছে অন্ততঃ কারো ছাড় নেয় বলে কাউকে তদবির করতে না আসার জন্য অনুরোধ করেন।

ওসি বলেন, অন্য যে কোন করনে সুপারিশ এলে তা মানা যাবে কিন্তু এই কাজের জন্য কেউ সুপারিশ করলে কোনভাবেই তা গ্রহণ করা হবে না।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here