বেসরকারি সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান জাতীয়করণে বাজেট বরাদ্দের দাবি স্বাশিপের

0


সময় সংবাদ বিডি-ঢাকা:দেশের সব রনের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান পর্যায়ক্রমে জাতীয়করণের জন্য আসন্ন জাতীয় বাজেটে প্রয়োজনীয় বরাদ্দ রাখার দাবি জানিয়েছে স্বাধীনতা শিক্ষক পরিষদ (স্বাশিপ)। পাশাপাশি, জাতীয়করণ না হওয়া পর্যন্ত শর্ত শিথিল করে যোগ্য সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্তির জন্য বরাদ্দ রাখার দাবিও জানিয়েছে তারা। আজ দুপুরে ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলনে এ দাবি জানান শিক্ষক নেতারা।

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, পরিচালনা কমিটির নৈরাজ্য থামাতে এবং পুরো শিক্ষাব্যবস্থা সরকারের নিয়ন্ত্রণে রাখতে দেশের নন-এমপিও ও এমপিওভুক্ত সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান পর্যায়ক্রমে জাতীয়করণ করতে হবে। স্বতন্ত্র এবতেদায়ি মাদ্রাসা, উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠান,পাস কোর্স ও অনার্স-মাস্টার্স কলেজ,সেকায়েপ (সেকেন্ডারি এডুকেশান কোয়ালিটি অ্যান্ড অ্যাকসেস এনহান্সমেন্ট প্রজেক্ট) প্রকল্পের শিক্ষকসহ সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান জাতীয়করণের আওতায় নিতে হবে। এ লক্ষ্যে আসন্ন ২০২০-২০২১ অর্থ-বছরের বাজেটে প্রয়োজনীয় বরাদ্দ রাখতে হবে। একবারে জাতীয়করণ সম্ভব না হলে প্রয়োজনে ‘এ’, ‘বি’, ‘সি’ ও ‘ডি’ ক্যাটাগরি করে পর্যাক্রমে এমপিওভুক্ত করতে হবে। মুজিববর্ষে জাতীয়করণ শুরু করতে হবে।

এ সময় শিক্ষক নেতারা দাবি জানান, জাতীয়করণ না হওয়া পর্যন্ত শর্ত শিথিল করে সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ক্যাটাগরি করে পর্যায়ক্রমে এমপিওভুক্ত করতে হবে। এমপিওভুক্ত শিক্ষক-কর্মচারীদের বাড়িভাড়া, চিকিৎসা ভাতা, উৎসব ভাতা বাড়িয়ে বৈষম্য দূর করতে হবে। অতিদরিদ্র শিক্ষার্থীদের জন্য বিশেষ বৃত্তি, কিন্ডারগার্টেন শিক্ষকদের জন্য বিশেষ প্রণোদনার জন্য আসন্ন বাজেটে পর্যাপ্ত অর্থ বরাদ্দ করতে হবে। এছাড়াও প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্যানেল শিক্ষকদের যোগ্যতার ভিত্তিতে নিয়োগদান এবং বেসরকারি শিক্ষকদের বদলি কার্যকরের দাবি জানানো হয় সংবাদ সম্মেলনে।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন স্বাশিপ সাধারণ সম্পাদক অধ্যক্ষ মো. শাহজাহান আলম সাজু। স্বাগত বক্তব্য রাখেন স্বাশিপ সভাপতি অধ্যাপক ড. আবদুল মান্নান চৌধুরী। এছাড়া ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলনে যুক্ত হন অন্য শিক্ষক নেতারা।

লিখিত বক্তব্যে অধ্যক্ষ মো.শাহজাহান আলম সাজু বলেন, করোনায় শিক্ষা সেক্টর ব্যাপকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। ইতোমধ্যে অনেক কিন্ডারগার্টেন স্কুল বন্ধ হয়ে গেছে। নন-এমপিও প্রতিষ্ঠানগুলো চরম অর্থ সংকটে পড়েছে। এসব প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক-কর্মচারীরা অর্থাভাবে মানবেতর জীবনযাপন করছেন। এ অবস্থায় শিক্ষাখাতে পর্যাপ্ত অর্থ বরাদ্দ না করা হলে শিক্ষা সেক্টর চরম সংকটে নিপতিত হবে।

সংবাদ সম্মেলনে অধ্যক্ষ মো. শাহজাহান আলম সাজু আশাবাদ ব্যক্ত করে বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বিচক্ষণ নেতৃত্বে অচিরেই সব সংকট মোকাবিলা করে আবার শক্ত হাতে ঘুরে দাঁড়াবে বাংলাদেশ। প্রতিকূল অবস্থা মোকাবিলা করে শিক্ষার্থীদের পড়ার টেবিলে রাখার জন্য সর্বাত্মক প্রচেষ্টা চালিয়ে যাওয়ার জন্য সকল শিক্ষকের প্রতি আহ্বান জানান সাজু।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here