মান্দায় পুর্ব শত্রুতার জেরে দুপক্ষের সংঘর্ষে মহিলাসহ আহত ৫!

0


জুয়েলের পরিবারের উপর হামলার চিত্র

নিজস্ব প্রতিবেদক, সময় সংবাদ বিডি-
রাজশাহীঃ নওগাঁর মান্দা থানা এলাকায় পান বরজে পান ভাঙা নিয়ে পুর্ব শত্রুতার জেরে দুপক্ষের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় উভয় পক্ষের পাঁচজন আহত হয়ে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বিভিন্ন ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। এদের মধ্যে একই পরিবারের তিনজন মহিলা আহত হয়েছেন।

বৃহস্পতিবার সকালে সাবাই বাজারের পার্শ্ববর্তী এলাকা শেখ পাড়া গ্রামের জুয়েল রানা ও আলমগীর নামের প্রতিবেশী দুই পরিবারের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

এতে জুয়েল রানার পরিবারে তার মা মোমেনা বেওয়া, স্ত্রী জমেলা বিবি, ছোট ভাই ওয়াসিম রাজু ও তার স্ত্রী রিমি আহত হয়। রিমির মাথা ফেটে রক্ত ঝরতে থাকে। অপরদিকে একই গ্রামের আলমগীরের পরিবারে তিনি নিজে আহত হয়েছে বলে স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে। জানা গেছে, জুয়েল রানা ও আলমগীর একই এলাকার সাবাই বাজারের ডিস ব্যাবসায়ী।

এবিষয়ে জানতে চাইলে জুয়েল রানা বলেন, পুর্ব শত্রুতার জেরে বেশ কিছুদিন আগে প্রতিবেশী আলমগীর ও তার ছেলে মুরাদ কয়েকজন লোক এনে জোর করে বাড়ির পাশে আমার বরজের পান ছিড়ে নিয়ে যায়। এবং নানাবিধ অত্যাচার করে ও প্রান নাশের হুমকি দেয়। পরে আমি সুবিচারের চেয়ে মান্দা থানায় অভিযোগ করতে গেলে থানা পুলিশ অভিযোগ না নিয়ে আদালতে যাওয়ার পরামর্শ দেয়। এরপর আমি পুলিশ সুপার ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবর সুবিচার চেয়ে আবেদন করি। এবং আদালতে মামলা দায়ের করি।

তিনি বলেন, আমি গত পরশু থেকে ব্যাক্তিগত কাজে ঢাকায় ছিলাম। আর এ সুযোগে আলমগীর ও তার ছেলে পুনরায় আজ সকাল সাড়ে ৮ টার দিকে ১০/১২ জন লোক এনে আমার বরজের পান ছিড়তে থাকে। খবর পেয়ে আমার পরিবারের লোকজন তাদেরকে বাধা দিলে তারা হামলা চালিয়ে আমার মা, বউ, ছোট ভাই ও তার বউকে বেধড়ক মারধর করে।

জুয়েল আরও বলেন, এমনকি লাঠির আঘাতে ছোট ভাইয়ের বউ এর মাথা ফেটে রক্ত পড়তে থাকে। খবর পেয়ে আমি ৯৯৯ এ কল দিয়ে পুলিশের সহযোগিতা চাই। পরে পুলিশ এসে আমার মা ও ছোট ভায়ের বউকে উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠায়।

এমন ঘটনার সত্যতা জানতে প্রতিবেশী আলমের সাথে একাধিক বার যোগাযোগের চেষ্টা করে তাকে পাওয়া যায়নি।

এবিষয়ে মান্দা থানার এসআই আলমগীর সময় সংবাদ বিডিকে বলেন, ৯৯৯ থেকে খবর পেয়ে দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌছালে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসে। তবে সংঘর্ষে দুই পক্ষের মহিলাসহ কয়েকজন আহত হয়েছে।

তিনি বলেন, ঘটনাস্থলে একপক্ষের মহিলার মাথা ফেটে রক্ত ঝরতে দেখা গেছে। আর অপরপক্ষের আলমগীর নামের এক ব্যাক্তিকে বমি করতে করতে মাটিতে শুয়ে পড়তে দেখেছি। তবে তিনি ঘটনার আগে থেকেই আসুস্থ ছিলেন শুনেছি। পরে আহতরা চিকিৎসা নিতে চলে গেলে আমরা ঘটনাস্থল থেকে থানায় এসে অফিসার ইনচার্জ স্যারকে বিষয়টি অবগত করেছি।

সংঘর্ষের ঘটনা সন্ধানাগাদ জানতে চাইলে মান্দা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোজাফফর হোসেন সময় সংবাদ বিডিকে বলেন, সকালে একটি সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে শুনেছি। তবে কেউ অভিযোগ নিয়ে এলে তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে। তাছাড়া এব্যাপারে আদালতে মামলা চলমান আছে শুনেছি।

এদিকে, প্রতিবেশী দুই পরিবারের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা অনাকাঙ্ক্ষিত উল্লেখ করে দ্রুত এর সমাধানের চেষ্টা চলছে বলে জানিয়েছেন তেতুঁলীয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শ্রী বজেন্দ্রনাথ সাহা।

তবে এরিপোর্ট লিখা পর্যন্ত নতুন কোনো অভিযোগ হয়নি বলে থানা সুত্রে জানা গেছে।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here