রাজধানীতে এবার বসবে ২৪টি কোরবানির পশুর হাট

0


সময় সংবাদ বিডি -ঢাকা: পবিত্র ঈদুল আজহায় ঢাকার দুই সিটিতে, এবার ২৪টি অস্থায়ী কোরবানির পশু বিক্রির হাট বসবে। এরমধ্যে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন (ডিএনসিসি) এলাকায় ১০টি এবং ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন (ডিএসসিসি) এলাকায় ১৪টি হাট বসবে।

এছাড়া গাবতলীর স্থায়ী গবাদি পশু বিক্রির হাটেও চলবে কোরবানির পশু বেচাকেনা। দুই সিটি করপোরেশনের সম্পত্তি বিভাগ সূত্রে জানা গেছে এসব তথ্য। তাছাড়া, এগুলোর সঙ্গে রাজধানীর স্থায়ী পশুর হাট গাবতলীতেও চলবে কোরবানির পশু বেচা-কেনা।

ডিএসসিসি সূত্রে,জানা যায়, গত ১৪ জুন ১৪টি হাটের অস্থায়ী ইজারার জন্য দরপত্র আহ্বান করে বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হয়েছে। এগুলোর মধ্যে রয়েছে- উত্তর শাহজাহানপুরের মৈত্রী সংঘ মাঠ এলাকার খালি স্থান, হাজারীবাগের ইনস্টিটিউট অব লেদার টেকনোলোজি মাঠ সংলগ্ন খালি স্থান, কামরাঙ্গীরচরের ইসলাম চেয়ারম্যান বাড়ি থেকে দক্ষিণ বুড়িগঙ্গা বাঁধ পর্যন্ত খালি স্থান, পোস্তাগোলা শ্মশান ঘাট এলাকার খালি স্থান, শ্যামপুর বালুর মাঠ সংলগ্ন আশপাশের খালি স্থান,মেরাদিয়া বাজারের আশপাশের খালি স্থান,আরমানিটোলা মাঠ সংলগ্ন আশপাশের খালি স্থান,গোপীবাগ বালুর মাঠ ও কমলাপুর স্টেডিয়াম সংলগ্ন আশপাশের খালি স্থান, যাত্রাবাড়ীর দনিয়া কলেজ সংলগ্ন আশপাশের খালি স্থান,ধূপখোলা মাঠ সংলগ্ন খালি স্থান,সাদেক হোসেন খোকা মাঠ সংলগ্ন ধোলাইখাল ট্রাকস্ট্যান্ড এলাকা,আফতাব নগরের (ইস্টার্ন হাউজিং) ব্লক ই,এফ,জি ও এইচ এবং সেকশন-১ ও ২ এর খালি স্থান, আশুলিয়া মডেল টাউনের খালি স্থান এবং লালবাগের রহমতগঞ্জ খেলার মাঠের আশপাশের খালি স্থান।

ডিএসসিসি সূত্রে, আরো জানা গেছে, ঢাকা উত্তরে এবার ১০টি স্থানে পশুর হাট বসানো হবে। সম্ভাব্য স্থানগুলো হলো- ভাষানটেক রাস্তার নির্মাণাধীন অব্যবহৃত-পরিত্যক্ত অংশ এবং পাশের খালি স্থান, ভাটারা সংলগ্ন এলাকা, ঢাকা পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটের খেলার মাঠ, বাড্ডা ইস্টার্ন হাউজিংয়ের খালি স্থান (আফতাবনগর), মোহাম্মদপুর বুদ্ধিজীবী সড়কের পাশে পুলিশ লাইনের খালি স্থান, মিরপুর সেকশন-৬ (ইস্টার্ন হাউজিং) এর খালি স্থান,উত্তরা ১৫ নম্বর সেক্টরের ১ নম্বর ব্রিজের পশ্চিমের অংশ এবং ব্রিজের পশ্চিমে গোলচত্বর পর্যন্ত সড়কের ফাঁকা স্থান,উত্তরা ১৭ নম্বর সেক্টরের বৃন্দাবন থেকে উত্তর দিকে বিজিএমইএ পর্যন্ত খালি স্থান,কাওলা শিয়ালডাঙ্গা সংলগ্ন খালি স্থান।

তাছাড়া,ডিএনসিসিতে আরও একটি স্থান হাটের জন্য নির্ধারণ করার প্রক্রিয়া চলছে। পশুর হাটে এবার স্বাস্থ্যবিধি মানার ক্ষেত্রে সরকারের যে নির্দেশনা আছে সেটা ক্রেতা-বিক্রেতাকে হুবহু মানতে হবে। এ বিষয়ে হাটে মাইকিং করা হবে। এছাড়া পোস্টার-লিফলেট ব্যানারের মাধ্যমেও সচেতন করা হবে।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here