রাজশাহীতে ঈদের দিনে একমাত্র শিশু কন্যাকে হারিয়ে আত্নহারা বাবা মা

0


ডেস্ক নিউজ, সময় সংবাদ বিডি-

রাজশাহীঃ রাজশাহীর মোহনপুর উপজেলার হরিদাগাছি গ্রামের এক শিশু কন্যা পানিতে ডুবে নিহত হয়েছে। নিহত শিশুটি মেহরীন আকতার(৬) হরিদাগাছি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিশু শ্রেনীর ছাত্রী। বাবা মায়ের একমাত্র কন্যা মেহরীনের বাবা মামুনুর রশীদ কেশরহাট বাজারের সুতা ব্যাবসায়ী।

আজ শনিবার (১ আগস্ট) সকালে ঈদ উল আযহার নামাজ শেষে বাবা ও চাচা এবং চাচাত ভাইয়েরা মিলে একত্রে বাড়ির পাশেই কুরবানির গরুর জবায়ের কাজ করছিলেন৷ আর শিশু মেহরীন পাশেয় খেলাধুলা করছিলো। একপর্যায়ে পাশে প্রায় ৬০ হাত অদূরে এক পুকুরে সবার অজান্তেই পড়ে গিয়ে ডুবে যায় মেহরীন। এর প্রায় ঘন্টা খানেক পর পার্শ্ববর্তী এক মহিলা এসে খবর দিলে পরিবারের লোকজন গিয়ে শিশুটির লাশ পুকুরে ভাসমান অবস্থায় উদ্ধার করে বাড়িতে নিয়ে যায়।

সময় সংবাদ বিডিকে এর সত্যতা নিশ্চিত করেন মোহনপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোস্তাক আহম্মেদ ও নিহত মেহরীনের চাচাতো বড় ভাই প্রত্যক্ষদর্শী মো. শামিম।

চাচাতো বড় ভাই শামিম বলেন, এরপর সন্ধ্যা ৬ টায় জানাজা শেষে পারিবারিক গোরস্থানে লাশ দাফন করা হয়।

খবর পেয়ে স্থানীয় (পবা-মোহনপুর) আসনের সংসদ সদস্য আয়েন উদ্দিন এমপি ও মোহনপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোস্তাক আহম্মেদ, কেশরহাট পৌর মেয়র শহিদুজ্জামান শহিদ, কেশরহাট বাজারের বিশিষ্ট ব্যবসায়ী সাহিনুর রহমান ও স্থানীয় আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের উপস্থিতিতে জানাজা শেষে লাশ দাফন করা হয়।

সরেজমিনে দেখা যায়, পরিবারের একমাত্র মেয়ে মেহরীনকে হারিয়ে আত্নহারা বাবা মা ও আত্বীয়সজন। অনেক আদরের সন্তান ছিলো মেহরীন। দুপুরে মেহরীনের মরাদেহ উদ্ধারের পর বাড়িতে শোকের ছায়া নেমে আসে। এক বেদনাদায়ক পরিস্থিতির সম্মুখীন হতে হয় পার্শ্ববর্তী প্রতিবেশীদের।

মেহরীনের লাশ দাফন শেষে কেশরহাট পৌর মেয়র শহিদুজ্জামান শহিদ বলেন, ঈদের দিনে যখন সবায় আনন্দ উপভোগ করবে ঠিক এই সময় মেহেরীনের সবাইকে ছেড়ে চলে যাওয়া কোন ভাবেই মেনে নেয়া যায়না। আমি নিহত মেহরীনের পরিবারের প্রতি গভিরভাবে সমবেদনা জানানোর পাশাপাশি নিহতের আত্নার মাগফেরাত কামনা করে শোক প্রকাশ করছি।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here