সাহারা খাতুনের মরদেহ দেশে আসছে আজ রাতে-আগামী কাল দাফন বনানীতে

0


সময় সংবাদ বিডি- ঢাকা: সাবেক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য সাহারা খাতুনের মরদেহ আজ মধ্যরাতে ঢাকায় পৌঁছাবে এরপর আগামীকাল রাজধানীর বনানীতে মায়ের কবরে তাঁকে দাফন করা হবে বলে দলের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে।

আজ শুক্রবার, বিকেলে এক ভিডিও বার্তায় আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির নানক বলেন,আগামীকাল শনিবার সাহারা খাতুনের জানাজা অনুষ্ঠিত হবে। আমরা সময়টি পরে জানাতে পারব। তাঁকে বনানীর কবরস্থানে মায়ের কবরে দাফন করা হবে।

জাহাঙ্গীর কবির নানক এসময় আরো বলেন, অ্যাডভোকেট সাহারা খাতুনের মরদেহ আজ রাত ৯টায় ইউএস বাংলার একটি ফ্লাইটে থাইল্যান্ড থেকে ঢাকার উদ্দেশে রওনা করবে। আমরা আশা করছি, রাত ১২টার মধ্যে তাঁর মরদেহ হযরত শাহাজালাল আন্তর্জাতিক বিনামবন্দরে এসে পৌঁছাবে।

গতকাল বৃহস্পতিবার রাতে থাইল্যান্ডের বামরুনগ্রাদ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় জাতীয় সংসদ সদস্য সাহারা খাতুন মারা যান। গত ২ জুন ঢাকা-১৮ আসনের সংসদ সদস্য সাহারা খাতুন জ্বর, অ্যালার্জিসহ বার্ধক্যজনিত বিভিন্ন রোগে অসুস্থ অবস্থায় রাজধানীর ইউনাইটেড হাসপাতালে ভর্তি হন। হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় অবস্থার অবনতি হলে ১৯ জুন তাঁকে আইসিইউতে নেওয়া হয়।

এরপর অবস্থার উন্নতি হলে ২২ জুন তাঁকে আইসিইউ থেকে এইচডিইউতে (হাই ডিপেন্ডেন্সি ইউনিট) স্থানান্তর করা হয়। ২৬ জুন সকালে তাঁর শারীরিক অবস্থার আবারও অবনতি হয়। ফের নেওয়া হয় আইসিইউতে। একটু ভালো হওয়ার পর ৬ জুলাই তিনি থাইল্যান্ডের উদ্দেশে ঢাকা ত্যাগ করেন।

এডভোকেট সাহারা খাতুন ১৯৪৩ সালের ১ মার্চ ঢাকার কুর্মিটোলায় জন্মগ্রহণ করেন। তাঁর বাবা আবদুল আজিজ ও মা টুরজান নেসা। সাহারা খাতুন স্নাতক ও এলএলবি ডিগ্রি সম্পন্ন করে আইনপেশায় যোগ দেন। ছাত্রজীবনেই তিনি রাজনীতিতে যুক্ত হন। তিনি বাংলাদেশ আওয়ামী আইনজীবী পরিষদের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি। এর পাশাপাশি তিনি আন্তর্জাতিক মহিলা আইনজীবী সমিতি ও আন্তর্জাতিক মহিলা জোটের সদস্য ছিলেন।

সাহারা খাতুন ২০০৮ সালে নবম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। এরপর তিনি বাংলাদেশের ইতিহাসে প্রথম নারী স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। পরে তিনি ডাক ও টেলিযোগাযোগমন্ত্রী হন। এরপর দশম ও একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে তিনি সংসদ সদস্য হিসেবে নির্বাচিত হলেও মন্ত্রিসভায় স্থান পাননি।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here