সিটি করপোরেশন নির্বাচনে ভোটযুদ্ধে ৪৮ মেয়র প্রার্থী

0


52cbdfa9da519_130271

স্টাফ রিপোর্টার, সময় সংবাদ বিডি-

ঢাকাঃঢাকা উত্তর, দক্ষিণ ও চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন নির্বাচনে চূড়ান্ত ভোটযুদ্ধে আছেন ১ হাজার ১৬৮ জন। এর মধ্যে তিন সিটিতে মেয়র প্রার্থী ৪৮ জন। ঢাকা উত্তরে ১৬, দক্ষিণে ২০ ও চট্টগ্রামে ১২ জন মেয়র পদে লড়বেন। মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের শেষ দিনে গতকাল বৃহস্পতিবার পর্যন্ত তিন সিটিতে মোট ৫০৫ জন প্রার্থিতা প্রত্যাহার করেছেন। শেষ দিনে ঢাকা উত্তরে আওয়ামী লীগের সাবেক সংসদ সদস্য সারাহ বেগম কবরী নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ান। ফলে এই সিটির মেয়র পদে আনিসুল হক ছাড়া আওয়ামী লীগের আর কোনো প্রার্থী নেই। ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনে বিএনপি নেতা আবদুস সালাম মনোনয়ন প্রত্যাহার করে নিয়েছেন।তবে কেন্দ্রীয় বিএনপি নেতা আসাদুজ্জামান রিপন লড়াইয়ে থাকছেন।

এর আগে মনোনয়নপত্র বাছাইয়ের পর তিন সিটিতে মেয়র পদে ৫৪, সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর পদে ২৯৩ এবং সাধারণ কাউন্সিলর পদে ১ হাজার ২৩৬ অবৈধ প্রার্থী ছিলেন। পরে আদালতের নির্দেশে ১৪ জন ও আপিলের মাধ্যমে তিন সিটিতে আরও ৬২ জন প্রার্থিতা ফিরে পান।

গত ১৮ মার্চ ইসি ঘোষিত নির্বাচনী তফসিল অনুযায়ী গতকাল বৃহস্পতিবার ছিল মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের শেষ দিন। আজ শুক্রবার শেষ পর্যন্ত ভোটের লড়াইয়ে থাকা প্রার্থীদের মধ্যে প্রতীক বরাদ্দ করা হবে। সকাল ১০টায় সংশ্লিষ্ট সিটির রিটার্নিং অফিসারের কার্যালয় থেকে প্রতীক বরাদ্দ দেওয়া হবে।

ঢাকা উত্তরে তিনটি পদে মোট ১৯৭ জন প্রার্থী গতকাল মনোনয়ন প্রত্যাহার করেছেন।এর মধ্যে মেয়র তিনজন। সাধারণ ওয়ার্ডের ১৬৯ জন ও সংরক্ষিত ওয়ার্ডের ২৫ জন কাউন্সিলর প্রার্থী রয়েছেন। ঢাকা দক্ষিণে তিনটি পদে মোট ২৫৪ জন মনোনয়ন প্রত্যাহার করেছেন। এর মধ্যে রয়েছেন ৪ জন মেয়র, ২০১ জন সাধারণ ওয়ার্ডের কাউন্সিলর ও ৪৯ জন সংরক্ষিত আসনের কাউন্সিলর। চট্টগ্রাম সিটিতে মোট প্রত্যাহার করেছেন ৫৪ জন। এর মধ্যে মেয়র পদে কোনো প্রার্থী মনোয়নপত্র প্রত্যাহার না করলেও কাউন্সিলর পদে ৫৩ জন এবং একজন সংরক্ষিত ওয়ার্ডের কাউন্সিলর প্রার্থী প্রত্যাহার করেছেন। ঢাকার কাউন্সিলর পদের অনেক প্রার্থী রিটার্নিং অফিসারের কার্যালয়ে এসে দলীয় সিদ্ধান্তে মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারে বাধ্য হচ্ছেন বলে অভিযোগ করেছেন। তাদের এ নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করতে দেখা গেছে।চূড়ান্ত লড়াইয়ে থাকছেন ঢাকা উত্তরে মেয়র ১৬, সাধারণ ওয়ার্ডে ২৭৭ ও নারী ওয়ার্ডে ৩৮১ জন। ঢাকা দক্ষিণ সিটিতে মেয়র ২০, সাধারণ ওয়ার্ডে ৩৮৬ ও নারী ওয়ার্ডে ৯৫ জন। চট্টগ্রাম সিটিতে মেয়র ১২, সাধারণ ওয়ার্ডে ২১৩ জন এবং নারী ওয়ার্ডে ৬১ জন। সব মিলিয়ে ১ হাজার ১৬৮ জন মুষ্টিযুদ্ধে অংশ নিচ্ছেন।

গত ৭ এপ্রিল তিন সিটিতে আনুষ্ঠানিক নির্বাচনী প্রচার শুরু হয়েছে। ২৮ এপ্রিল একযোগে তিন সিটিতে ভোট অনুষ্ঠিত হবে। ২৯ মার্চ মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার শেষ দিন পর্যন্ত তিন সিটিতে এক হাজার ৮৩৩ জন প্রার্থী হন। পরে আদালতের নির্দেশে ঢাকার দুই সিটিতে আরও ১৩ জন মনোনয়ন জমা দেওয়ার সুযোগ পান। এর মধ্যে বাছাইয়ে বাদ পড়েন ২৫০ জন। তাদের মধ্যে অনেকে আবার আপিলে টিকে গেছেন।গতকাল নির্বাচন কমিশন থেকে পাওয়া তথ্য অনুযায়ী তিন সিটির মেয়র পদে মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করেছেন ৬ জন। এর মধ্যে ঢাকা দক্ষিণে ৪ ও উত্তরে ৩ জন মেয়র প্রার্থী মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করে নেন। ঢাকা দক্ষিণে মেয়র পদে গতকাল পর্যন্ত চার প্রার্থী মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করে নিয়েছেন। তারা হলেন_ বিএনপি নেতা আবদুস সালাম, মো. ইমতিয়াজ আলম, কাজী আবুল বাশার ও মোহাম্মদ রিয়াজউদ্দিন। ঢাকা উত্তরে গতকাল শেষ দিনে সারাহ বেগম কবরী, ববি হাজ্জাজ ও মোস্তফা কামাল আজাদী মনোনয়ন প্রত্যাহার করে নিয়েছেন।

উত্তরের ১৬ মেয়র প্রার্থীঢাকা উত্তরে মেয়র পদের লড়াইয়ে রয়েছেন আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী আনিসুল হক, বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আবদুল আউয়াল মিন্টুর ছেলে তাবিথ আউয়াল, সাবেক সংসদ সদস্য ও বিকল্পধারার কেন্দ্রীয় নেতা মাহী বি চৌধুরী, জাপা সমর্থিত বাহাউদ্দিন আহমেদ বাবুল, সিপিবির আবদুল্লাহ আল কস্ফাফী রতন, জাসদ সমর্থিত নাদের চৌধুরী, গণসংহতির মো. জোনায়েদ আবদুর রহমান সাকি, মো. শামছুল আলম চৌধুরী, এ ওয়াই এম কামরুল ইসলাম, কাজী মো. শহীদুল্লাহ, মোয়াজ্জেম হোসেন খান মজলিশ, চৌধুরী ইরাদ আহম্মদ সিদ্দিকী, মো. আনিসুজ্জামান খোকন, মো. জামান ভূঞা, শেখ শহিদুজ্জামান ও শেখ মো. ফজলে বারী মাসউদ।দক্ষিণে ২০ মেয়র প্রার্থীঢাকা দক্ষিণে আওয়ামী লীগ সমর্থিত সাঈদ খোকন, বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস, আন্তর্জাতিকবিষয়ক সম্পাদক এস এম আসাদুজ্জামান রিপন, জাতীয় পার্টি সমর্থিত মোহাম্মদ সাইফুদ্দিন মিলন, মো. আকতারুজ্জামান ওরফে আয়াতুল্লাহ, মো. রেজাউল করিম চৌধুরী, মো. আবদুল খালেক, জাহিদুর রহমান, আবু নাছের মোহাম্মদ মাসুদ হোসাইন, বাহরানে সুলতান বাহার, শাহীন খান, দিলীপ ভদ্র, জাসদ সমর্থিত শহীদুল ইসলাম, শফিউল্লাহ চৌধুরী, এএসএম আকরাম, আবদুর রহমান, বজলুর রশীদ ফিরোজ, মশিউর রহমান, সাবেক সংসদ সদস্য গোলাম মওলা রনি ও অ্যাডভোকেট আয়ুব হোসেন। এর মধ্যে রেজাউল করিম চৌধুরী বাছাইয়ে বাদ পড়লেও পরে আপিলে তাকে বৈধ প্রার্থী হিসেবে ঘোষণা করা হয়েছে।

চট্টগ্রামে মেয়র প্রার্থী ১২ জনচট্টগ্রাম সিটিতে মেয়র পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবেন ১২ প্রার্থী। মনোনয়ন প্রত্যাহারের শেষ দিনে গতকাল কোনো প্রার্থী মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করেননি। ভোটের লড়াইয়ে আছেন আওয়ামী লীগ সমর্থিত আ জ ম নাছির উদ্দিন, বিএনপি সমর্থিত মনজুর আলম, জাপার সোলায়মান আলম শেঠ, আরিফ মইনুদ্দীন, এম এ মতিন, আবুল কালাম আজাদ, আলাউদ্দিন চৌধুরী, ওয়ায়েজ হোসেন ভূঁইয়া, শফিউল আলম, সাইফুদ্দিন আহমদ, সৈয়দ সাজ্জাদ জোহা এবং হোসাইন মুহাম্মদ মুজিবুল হক।

প্রতীক: মেয়র পদের ১২ প্রতীকের মধ্যে রয়েছে_ কমলালেবু, ক্রিকেট ব্যাট, চরকা, টেবিল ঘড়ি, টেলিস্কোপ, ডিশ অ্যান্টেনা, দিয়াশলাই, ফ্লাস্ক, বাস, ময়ূর, হাতি ও ইলিশ মাছ। সংরক্ষিত আসনের কাউন্সিলরদের জন্য ১০ প্রতীক_ কেটলি, গ্গ্নাস, পানপাতা, পিঞ্জর, টিস্যু বক্স, বৈয়ম, মুলা, মোড়া, শিলপাটা, স্টিল আলমারি। সাধারণ কাউন্সিলরদের জন্য ১২ প্রতীক :কাঁটা চামচ, মিষ্টি কুমড়া, এয়ারকন্ডিশনার, করাত, ঘুড়ি, টিফিন ক্যারিয়ার, ট্রাক্টর, ঠেলাগাড়ি, ঝুড়ি, ব্যাডমিন্টন র‌্যাকেট, রেডিও ও লাটিম।

এ ছাড়া আরও ৩০টি অতিরিক্ত প্রতীক বরাদ্দ রয়েছে। ইসির অতিরিক্ত প্রতীকের তালিকায় থাকা অন্য প্রতীকগুলো হলো_ কামরাঙা, কেক, ছুরি, জাহাজ, ঝুমঝুমি, টিফিন বক্স, পিঁড়ি, টুপি, থালা, হাঁড়ি-পাতিল, ইট, আংটি, বর-কনে, দা, নেইল কাটার, পাটপাতা, বেল্ট, মগ, ব্লেজার, স্ট্যাপলার মেশিন, সোফা, হকিস্টিক ও টুথব্রাশ।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here