২০২০ বই মেলায় জনপ্রিয় লেখক খায়রুননেসা রিমির একাধিক বই প্রকাশ

0

নিজস্ব প্রতিবেদন,সময় সংবাদ বিডি-ঢাকা:খায়রুননেসা রিমি পেশায় শিক্ষক হলেও তার নেশা-লেখা লেখি । সময় সংবাদ বিডির একান্ত সাক্ষাৎকারে খায়রুননেসা রিমি বলেন,আমি সেই ছোট বেলা থেকেই লিখি এবং লিখতে ভালোবাসি। আমি আমার গল্পের লিখার মাঝে অনেক কিছু তুলে ধরার চেষ্টা করি। একটা সময় জাতীয় দৈনিকে নিয়মিত লিখতেন। এখনও নিয়মিত আমার কিছু লিখা বিভিন্ন পত্রিকায় প্রকাশিত হয়।

সময় সংবাদ বিডির এক প্রশ্নের জবাবে খায়রুননেসা রিমি বলেন, প্রতি বছরেই আমার ২/৩ টা করে বইও প্রকাশিত হয় বাজারে। বাংলাদেশের সাহিত্য জগতে শিশু সাহিত্যিক হিসেবে পরিচয় মিললেও আমি বড়দের জন্য গল্প,কবিতা,উপন্যাস ও ভ্রমণ কাহিনিও নিয়মিত লিখে থাকি। বলতে গেলে এক কথায় লেখা লেখি আমার নেশা,আমি লেখা লেখি মাঝে আনন্দ পাই।

এবছর বই মেলায় এসেছে আমার লেখা কিশোর উপন্যাস “ভূতং ভূতের কারসাজি”। এছাড়াও গতবছরের ভূত কন্যা নীলাবতী” বইটিও পাওয়া যাবে বাংলাএকাডেমী বই মেলার বিশ্বসাহিত্য ভবনের ২৪ নং প্যাভিলিয়নে। আরও ৬ টি বই “শালিক কন্যার বিয়ে,রোদেলার জন্মদিন, মার্বেল ভূত,জীবনী গ্রন্থ “অধ্যক্ষ হামিদা আলী” রোমান্টিক উপন্যাস অাত্মিকপ্রেম ও রোমান্টিক কাব্যগ্রন্থ মন রাঙে না ফাগুনে পাওয়া যাবে গ্রাফোসম্যান প্রকাশনীর ৬৭৮ ও ৬৮৯ নং স্টলে ।

তিনি আরো বলেন, নব সাহিত্য প্রকাশনী স্টল নং ২৯৩ তে পাওয়া যাবে প্রকাশক অলিউর রহমান খান প্রকাশিত খায়রুন নেসা রিমির আরও একটি কাব্যগ্রন্থ সপ্তর্ষি। এছাড়াও আমার আরো অসংখ্য বই আছে একাধিক প্রকাশনীতে।

খায়রুননেসা রিমি যেহেতু পেশায় শিক্ষক তাই তিনি তার সব বইয়েই একাধিক মেসেজ দিয়ে থাকেন যে মেসেজ বাস্তব জীবনে কাজে লাগিয়ে কোমলমতী শিক্ষার্থীরা ভীষণভাবে উপকৃত করবেন। তেমনি বড়দের নিয়ে লেখা গল্প উপন্যাসেও থাকে এমন অনেক মেসেজ।

সময় সংবাদ বিডিকে তিনি আরো বলেন, আমি বাস্তব জীবনের নাটকীয় ভাবে লেখা লেখি শুরু করেন, যে পাঠক একবার আমার বইপড়া শুরু করেন শেষ না করে উঠতে পারেন না। আর তাই হয়তো খুব অল্প সময়েই পাঠকের মনে বেশ খানিকটা জায়গা করে নিয়েছে।

আশাকরি আমার লেখা কিশোর উপন্যাস “ভূতং ভূতের কারসাজি” ও কাব্য গ্রন্থ “সপ্তর্ষি” আমার এবারের প্রকাশিত বইগুলো পাঠকের হৃদয়ে,আরো বেশি জায়গা করে নিবে। সকল পাঠকদের জন্য শুভকামনা রইলো । ধন্যবাদ,সময় সংবাদ বিডি।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here